আসালামু আলাইকুম । সবাই কেমন আছেন , আশা করছি নিশ্চয়ই ভাল আছেন । আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব আউটসোর্সিং  কিভাবে  শুরু  করবেন সেই বিষয়ে । চলুন তাহলে আমাদের মুল পোস্টে যাওয়া যাক ।

 

আউটসোর্সিং কি ?

আউটসোর্সিং বিষয়টা মূলত এমন- একটি কোম্পানি কোনো প্রজেক্টের কাজ করার জন্য নিজস্ব এমপ্লয়িদের দিয়ে কাজটি না করিয়ে কোম্পানির বাহির থেকে ওয়ার্কার হাইয়ার করে , আর যে এই কাজটি করে দেয় তাকে ফ্রীলান্সার বলে । ফ্রীল্যানসিং ক্যারিয়ারটা মুক্ত পেশা । কোনো নির্দিষ্ট কোম্পানির হয়ে কাজ করা না , এক এক সময় এক এক কোম্পানি দ্বারা হাইয়ার হয়ে তাদের দেয়া কাজ গুলো করে দেয়া । কোনো কোম্পানি এইভাবে ওয়ার্কার হাইয়ার করে মূলত কাজের কস্টিং কমানোর জন্য । আউটসোর্সিং প্রথমে ১৯৮২ সালে একটি ব্যবসা স্ট্রাটেজি হিসাবে স্বীকৃত হয়েছিল এবং ১৯৯০ -এর দশকে আন্তর্জাতিক ব্যবসায়িক অর্থনীতির একটি অংশ হয়ে ওঠে ।

 

কি কি ধরণের কাজের জন্য ওয়ার্কার হাইয়ার করে ?

১। ইনবাউন্ড কাস্টমার সার্ভিস

২। আউটবাউন্ড টেলিমার্কেটিং

৩। ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট

৪। এসইও এবং অনলাইন মার্কেটিং

৫। অ্যাডমিন সাপোর্ট

৬। ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট সার্ভিসেস

৭। অ্যাকাউন্টিং এবং এইচআর ম্যানেজমেন্ট

৮। মার্কেটিং এবং সেলস সাপোর্ট, ইত্যাদি ।

 

আপনি কিভাবে উপকৃত হবেন আউটসোর্সিং থেকে ?

লোকাল মার্কেটপ্লেস থেকে শুরু করে ইন্টারনাইনাল মার্কেটপ্লেস পর্যন্ত কোম্পানি বা ব্যাক্তি তাদের কাজের জন্য ওয়ার্কার আউটসোর্চ করে । আর যে কাজ গুলোর জন্য তারা ফ্রীলাসার হাইয়ার করে সেই কাজ গুলোতে নিজেকে দক্ষ করে ফুল টাইম বা পার্ট টাইম হিসেবে শুরু করতে পারেন আপনার ক্যারিয়ার । ব্যাক্তি বা কোম্পানি যে কাজ গুলোর জন্য ওয়ার্কার হাইয়ার করছে সেই কাজ গুলোর দক্ষতা অর্জন করে নিজের ইনকাম বৃদ্ধি করতে পারেন বা আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হন তাহলেও ফ্রীল্যানসিং কে পার্ট টাইম পেশা হিসেবে নিয়ে আয় করতে পারেন ।

 

আপনার ফ্রীল্যানসিং ক্যারিয়ার কিভাবে শুরু করবেন ?

 

ফ্রীল্যানসিং কাজের নিশ সিলেক্ট করুন

আউটসোর্সিং কিভাবে শুরু করবেন

 

যেমনটি উপরের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন , এখানে অনেক ক্যাটাগরির নিশ শো করছে । ফ্রীলান্সার হিসেবে কাজ করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে কোন নিশ এ কাজ করতে চান আপনাকে বেছে নিতে হবে । তারপর আপনার পছন্দের নিশের কাজে আপনাকে দক্ষতা অর্জন করতে হবে ।

 

কাজ পাবেন কি ভাবে ?

আপনার ফ্রীল্যানসিং নিশ সিলেক্টশন শেষ । কাজের দক্ষতাও অর্জন করলেন কিন্তু এখন কাজ পাবেন কিভাবে ? আপনাকে যে কাজ দিবে সে তো জানে না আপনি এই কাজ গুলো পারেন । আপনি যে কাজে দক্ষতা অর্জন করেছেন তা আপনার টার্গেটেড ক্লাইন্টদের বুঝানো অনেক ওয়ে আছে । যেমন- সেল্ফব্রান্ডিং , এখন ভাবতেসেন সেলফ ব্র্যান্ডিং করবো কিভাবে জানি না তো!! কোনো সমসসা নেই , আমি বলছি সেল্ফব্রান্ডিং কিভাবে করবেন ।

 

নিজের নামের ওয়েবসাইট

সেল্ফব্রান্ডিংএর জন্য নিজের নামের একটি ডোমেইন কিনে ফেলুন এবং আপনার প্রোটফোলিও ওয়েবসাইট বানিয়ে ফেলুন । আপনার ওয়েবসাইট এমন ভাবে সাজাবেন যেনো ক্লাইন্ট দেখলেই বুঝতে পারেন আপনি কি কি কাজের সার্ভিস দিয়ে থাকেন । আপনার সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল লিংক গুলো অ্যাড করে দিবেন ।

 

সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল

লিঙ্কডইন প্রোফাইল

একটি লিঙ্কডইন প্রোফাইলটি একটি রিজম , কভার লেটার, রেফারেন্স ডকুমেন্ট এবং আপনার নেটওয়ার্কের একটি চলমান এবং জীবন্ত ডাটাবেসের সমন্বয় । আপনার প্রোফাইলটি এমন ভাবে সাজান যেনো দেখলে বুঝা যায় আপনি কোন প্রফেশনে আছেন । আপনার প্রোফাইল সঠিক ভাবে সাজিয়ে আপনার টার্গেটেড ক্লাইন্টের নজরে আসতে পারেন এবং কাজের সন্ধান পেতে পারেন ।

ফেসবুক

১৬০ মিলিয়ন user রয়েছে এই সোশ্যাল মিডিয়াতে । আপনার ফেসবুক প্রোফাইলেও আপনি যে প্রফেশনে আছেন সেইভাবে সাজান যেনো যেকেও আপনার প্রোফাইল দেখলে বুঝতে পারে যে আপনি কি করেন । নিজের অরিজিনাল নাম এবং একটি অরিজিনাল ছবি use করেন , এমন অনেক অনেক সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট আছে যেগুলোতে আপনার প্রোফাইল সঠিভাবে সাজিয়ে আপনার ব্র্যান্ড ক্রিটে করতে পারেন । প্রত্যেকটি সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল একটির সাথে অন্য গুলোর প্রোফাইল লিংক অ্যাড করে দিবেন এবং আপনার নিজের নামার যে প্রোটফোলিও ওয়েবসাইট আছে সেটিরও লিংক অ্যাড করে দেবেন ।

 

মার্কেটপ্লেস

ফ্রীল্যানসিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে একাউন্ট ক্রিট করুন । আপনার প্রোটফোলিও ওয়েবসাইটটি অ্যাড করুন এবং আপনার টার্গেটেড ক্লাইন্ট আপনাকে কাজ দেবে এভাবে প্রোফাইল সাজান, এট্রাকটিভ কভার লেটার লিখুন । কিছুদিন সাইট গুলোতে জব বিড করার জন্য সময় দিন কয়েকদিনেই হতাশ হবেন না , আশা ছেড়ে দিবেন না আর রিসার্চ করে দেখুন কোন সময় জব বিড করলে আপনার পুর্বে অনেকে এপ্লাই করেফেলেছে এমন সংখ্যা খুব কম ,এমন সময় জব বিড করুন । ধর্য্য ধরে এগিয়ে যান সফলতা আসবেই । এই সেক্টরে ক্যারিয়ার গর্তে চাইলে আপনাকে প্রচুর পরিশ্রমী হতে হবে ।

 

আপনার প্রফেশনাল লাইফের জন্য শুভ কামনা এবং এই বিষয়ে আপনার আরো কিছু জানার থাকলে আমাদের জানাবেন ।

 

আপনার যেকোন প্রশ্ন, সমস্যা, অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারেন আমাদের সাথে ২ ভাবে মেইল ও কমেন্ট এর মাধ্যমে । কমেন্ট এর মাধ্যমে হেল্প চাইলে নিচে কমেন্ট করুন । মেইল এর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে চাইলে আমাদের কনটাক্ট আস পেজে যোগাযোগ করতে পারেন ।

আজ এই পর্যন্তই । আগামী কোন আর্টিকেলে আপনাদের সামনে হাজির হব নতুন কোন এসইও ও সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর  নতুন কোন বিষয় নিয়ে । আল্লাহ হাফেজ ।


Leave a Reply