Last Updated on

আমাদের ওয়েবসাইট তৈরি করার মূল উদ্দেশ্য হলও টাকা ইনকাম করা আর টাকা ইনকাম করার জন্য ওয়েবসাইট এ পর্যাপ্ত ভিজিটর লাগে ,যা আপনাকে টাকা ইনকাম করতে সাহায্য করে। আজকে আমি ১০টি টপিক বলব যা আপনি কাজে লাগিয়ে আপনার সাইটে ভিজিটর নিয়ে আস্তে পারবেন, চলুন এক নজরে দেখে নেই…

Topic 1–অন পেজ এসইও:

অন পেজ মানে একটা সাইটের বাহিরের যে বিষয়গুলা পরিবর্তন বা Optimized করা লাগে সেগুলাই। যদিও অনেকে এই বিষয়টাকে দাম দিতে চায় না তবে আমার কাছে খুবই দামি। কেন ভাই? রূপের প্রেম এ সবাই পড়তে চায় ভাই.সো আপনার সাইটের এর অন পেজ টা সময় নিয়া কইরেন। কম্পিটিটর থেকে সাহায্য চাইতে পারেন,যে তারা কিভাবে করছে। অন পেজ ভালো করতে ভালো করতে পারলেই ওয়েবপেজের ক্লিক ও ইম্প্রেশন ২টাই বেশি হয়।

Topic 2 –লং টেইল কিওয়ার্ড:

আমার কাছে কেন জানি Long tail Keyword রিসার্চ বিষয়টা খুবই সেন্সেটিভ কারন, আপনি যদি সঠিকভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারেন তাহলে আপনার সাইট রেঙ্কে নিয়ে আসা সহজ হয়ে যায়, ভালো ভাবে রিসার্চ করতে না পারলে হাজারো কনটেন্ট দিয়েও লাভ নাই, এজন্য আপনাকে কিওয়ার্ড রিসার্চের সময় লং টেইল কিওয়ার্ড ও এল এস এই কিওয়ার্ডকে ফোকাস করতে হবে।(মামু লাইক করে) এসব কিওয়ার্ড যেমন রেঙ্কে নিয়ে আসা সহজ তেমনি এগুলা আপনার সাইটের মূল কিওয়ার্ডের অথরিটি স্ট্রং করে. এই কিওয়ার্ডের কনভারসেশন রেট বেশি ও ৭০ ভাগ রেঙ্ক করা সহজ. এবার বাকি কাজ আপনার…।

Topic 3– লং কনটেন্ট লিখুন:

আর হা কনটেন্ট লেখার সময় আপনি আপনার কম্পিটিটর থেকে ১লাইন হলেও বেশি লিখবেন তবে,হ জ ব র ল লিখে লাভ নাই ভাই,গুগল এখন আপডেট আসার পর অনেক বোকা হইসে তাই আপনাকে আপনার ভিজিটর কি চায় আর Keyword Intent বুঝে লিখতে হবে. টিপস: কনটেন্ট লেখার সময় কিওয়ার্ড ডেনসিটি একটু একটু দেইখ্যা লইয়েন ভাই.এজন্য আপনি লং টেইল কিওয়ার্ড ইউজ করতে পারেন (মজা ).

Topic 4–ধারাবাহিকভাবে লিখুন:

ক্রিকেট খেলায় যেমন ধারাবাহিক ভাবে পারর্ফম করতে পারলে দলে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ঠিক তেমনি গুগল মামুর ও পছন্দ এই বিষয়টা। সো আপনি সাপ্তাহিক বা মাসিক বা ৩দিন পর পর কনটেন্ট পাবলিশ এর রুটিন করতে পারেন। তবে আমার কাছে সাপ্তাহিক ২টা পোস্ট করা বেটার মনে হয়. আর হা মাঝে মাঝে পুরাতন কন্টেন্ট এর একটু চেহারার পরিবর্তন করিয়েন ব্রো।( খেলা হবে ভাই এবার )

Topic 5–ফোরাম(Forum) সাইট:

আপনার নিস রিলেভেন্ট ফোরাম সাইট এ গিয়ে মানুষকে সহায়তা করুন পরবর্তীতে কাজে দিবে আপনার ট্রাফিক ড্রাইভ এর জন্য। টার্গেট ট্র্যাফিকের জন্য ফোরাম(Forum) সাইট ব্যবহার করুন,এখানে আপনার ভিজিটর সবসময় আড্ডা দেয় সো আপনি এই আড্ডাকে কাজে লাগিয়ে তাদের সাথে মিল লাগিয়ে আপনার দলে নিতে পারেন। বেশি কিছু বললাম না (সিক্রেট )

Topic 6–অথরিটি সাইটে গেস্ট পোস্ট:

কেন করবেন ভাই,মজা পাবেন দেখুন!! আপনার বাজেট কম থাকলে ফ্রি gest post সাইটে ট্রাই করতে পারেন। এটি আপনার টার্গেট ট্র্যাফিক নিয়ে আস্তে সহায়তা করে সাথে আপনার ব্লগের ব্র্যান্ড বৃদ্ধি করে থাকে।স্যার ,কনটেন্ট এর মাঝে ভিডিও রাইখেন আপনার বহুত লাভ (লাভ টা পরে একদিন বলবো ভাই )আর হা গেস্ট পোস্ট আপনার ডোমেন অথরিটি বাড়ায় অপ্পো করে.”” হাহাহাহাহাহা “”

Topic 7–সোশ্যাল বুকমার্কিং :

সহজে ওয়ে ভাই এটা ,আপনার কনটেন্ট Social Bookmarking সাইটে এ পাবলিশ করতে ভুলিয়েন না, ভালো হলে ভাইরাল হবেন আর আপনার সাইটে রেফারেল ট্রাফিক নিয়ে আস্তে খুবই কার্যকরী।কিছু সোশ্যাল বুকমার্কিং সাইট: Tumblr, Scoop, List.ly, Reddit, Digg, Diigo, WhatsApp, Instapaper.

ব্লগ কমেন্টিং:

আপনার নিস রিলেভেন্ট সাইট এ আপনি ব্লগ কমেন্টিং করে সাইটের অথরিটি নিয়ে আস্তে পারেন আর হা ম্যানুয়ালি করবেন ভাই..

#ব্লগ কমেন্টিং এ যা যা করা উচিত নয়:

ব্লগ কমেন্টিং এর সময় আমরা যে ভুলগুলো করে থাকি তা হল ব্লগটি না পরেই GOOD, NICE, WELL SAID ইত্যাদি কমেণ্ট করে থাকি। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এ সকল কমেন্ট এপ্রুভ হয় না।কারণ আমরা জানি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ব্লগ মানুয়ালি এপ্রুভ করা হয়। তাই ব্লগ কমেন্টিং করার সময় জেনে বুঝে বা প্রাসঙ্গিক কমেন্ট করতে হবে।

#ব্লগ কমেন্ট করার ক্ষেত্রে যেসব বিষয় লক্ষ্য রাখতে হয়:

১. না বুঝে, অপ্রাসঙ্গিক কমেন্ট না করা ।
২. কমেন্ট করার সময় word/Phrase না লিখে কয়েকটি বাক্যে কমেন্ট করা।
৩. ব্লগ কমেন্টিং নির্দেশনা দেয়া থাকলে তা ভালভাবে পড়া।
৪. প্রয়োজনে কমেন্ট এ anchor text এ targeted keyword ব্যবহার করা।

Topic 8–সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং :

যেমন: ইউটিউব,টুইটার,ফেসবুক ,ইনস্টাগ্রাম,রেডিট এ নিশ রিলেভেন্ট একাউন্ট ক্রিয়েট করে গ্রুপ ,পেজ, এ ইউনিক কনটেন্ট পাবলিশ করুন। (রুল গুলো দেইখেন).সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার কাস্টমার পাবেন।

Topic 9–ইন্টারনাল লিঙ্কিং:

আপনার সাইটের সাইলো Structure সিম্পল রাখবেন তাহলে আপনার Internal Linking করতে সুবিধা হবে, আর আপনার ভিজিটর সহজেই আপনার সাইট ভ্রমণ করতে পাবে। এমন ভাবে লিঙ্কিং করবেন যেন ভিজিটর আপনার ওই লিংক এ যেতে বাধ্য হয় আর সেটা ডু ফলো লিংক দিবেন, ইন্টারনাল লিঙ্ক ভালো ভাবে করবেন যেনো গুগল মামু সাইটে এসে ক্রল করে মজা পায়। (বাকিটা ইতিহাস )

Topic 10–Push নোটিফিকেশন :

আপনি যদি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে ট্র্যাফিক পেতে চান তবে “Push Notification” আপনার ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে থাকে। কেমনে ভাই, যখন ভিজিটর আপনার ব্লগে আসে তখন সে আপনার পুশ নোটিফিকেশন এ সাবস্ক্রাইব করে থাকে । যখন আপনি নতুন কোনো পোস্ট করবেন বা আপডেট করবেন তখন ভিজিটর সহজেই আপনার কনটেন্ট এর নোটিফিকেশন পেয়ে যাবে। (Try it)এই দুটি প্লাগিন ইউজ করতে পারেন আপনি ফ্রি তে OneSignal/PushEngage।
ধন্যবাদ সবাইকে আমার পোস্টটি পড়ার জন্য।আপনাদের কাছে কেমন লাগলো আমাকে বিস্তারিত কমেন্ট করে জানাবেন।