Last Updated on

সাধারনত, এসইও মানে আমরা একটি ওয়েবসাইট কে কিভাবে গুগলে রেঙ্কে নিয়ে আসা যায় । একটি সাইটকে কিভাবে ভালো পজিশন এ নিয়ে আসা যায় এবং ট্রাফিক নিয়ে আসা যায় এটাই এসইও মূল কাজ। তো আজকে আমি আলোচনা করবো ৫টি সেরা এসইও (SEO) টিপস যা আপনার সাইটের রেঙ্কিং ও ট্রাফিক এ সহায়তা করবে।

ওয়েবসাইটের  স্পিড

প্রথমত আপনার সাইটের স্পিড ২সেকেন্ড এর মধ্যে রাখার আপ্রান চেষ্টা করবেন সেটা যেকোনো ধরনের সাইট হউক না কেনো। আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটের রেঙ্কিংকে  গুগলে ভালো পজিশন এ রাখতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার সাইটের লোডিং স্পিড কমানোর জন্য কাজ করবেন।  লোডিং স্পিড একটি গুরুত্বপূর্ণ রেঙ্কিং ফ্যাক্টর।

সাইটের লোডিং স্পিড কমানোর কিছু টিপস

  • একটি ভাল ওয়েব হোস্টিং ব্যবহার করবেন(দেখেশুনে নিয়েন)
  • একটি হালকা থিম ব্যবহার করুন(ফ্রি ব্যবহার না করাই ভালো)
  • আপনি ক্যাশ প্লাগইন ব্যবহার করতে পারেন।
  • সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট এবং এইচটিএম মিনিফাই করতে ভুলবেন না
  • ইমেজ অপটিমাইজড অবশ্যই করবেন
  • HTTPS ভার্সনে সাইট রিডাইরেক্ট করে নিবেন
  • সর্বোপরি সাইটের ডিজাইন সাধারণ রাখবেন।
  • সাইটের লোডিং স্পিড কমানোর বিস্তারিত এখানে।

সার্চ ইনটেন্ট

সার্চ ইনটেন্ট বলতে ইউজার এর চাহিদা বুঝায় ভিজিটর কি চায়, গুগল যেন  বুঝতে পারে যে আপনি আপনার ভিজিটর এর জন্য লিখছেন। এজন্য আপনাকে কিওয়ার্ড রিসার্চের সময় কিওয়ার্ড ইনটেন্ট ব্যবহার করতে হবে।

আপনি যদি গুগলে সহজেই রেঙ্কিং পেতে  চান তবে আপনার ইউজার এর সার্চ ইনটেন্ট বা ইন্টারফেসটি বুঝতে হবে। সুতরাং, আপনি টার্গেট কীওয়ার্ডটি এর পাশাপাশি সার্চ ইনটেন্ট ব্যবহার করবেন আসা করি ভালো ফল পাবেন।

ইন ডেফথ আর্টিকেল

আপনার কম্পিটিটর এর এভারেজ আর্টিকেল দেখুন,তাদের আর্টিকেল এ থেকে ধারণা নিন এবং কোন বিষয়গুলা আপনার কম্পিটিটর এর আর্টিকেল এর গ্যাপ খুজে বের করুন দেখুন তারা আর্টিকেল এ কোন বিষয়গুলা রাখে নাই সেগুলা আপনি আপনার কনটেন্ট এ রাখুন। তাহলে ভিজিটর আপনার কন্টেন্ট থেকে অনেক কিছু জানতে পারবেন। ফাইনালি, আপনার কাস্টোমার যখন দেখবে যে আপনার ওয়েবসাইট থেকে অনেক কিছু ভালো তথ্য পাওয়া যাচ্ছে ,সে সাইটটি বুকমার্ক করতে ভুলবে না।

কনটেন্ট আপডেট করুন

নতুন আর্টিকেল পাবলিশ করার  পরিবর্তে আপনার পুরানো কনটেন্ট আপডেট করা উচিত যাতে গুগল বুঝতে পারে আপনার কনটেন্ট ভাল পারফর্ম করতেছে। কনটেন্ট আপডেট বলতে কনটেন্ট এ আপনি কিছু ওয়ার্ড যুক্ত করতে পারেন, কিছু টপিক এড করতে পারেন, পাওয়ারফুল ওয়ার্ড যুক্ত করতে পারেন, ভিজিটর যেন বাউন্স খায় সেজন্য ভালো ইমেজ, টিপস , পরিসংখ্যান বা ডাটা রাখতে পারেন। “কন্টেন্ট লিখার কৌশলগুলো জেনে নেই একবার”

ছোট টিপস

গুগল সার্চ কনসোলে যান এবং গুগলে কোন কিওয়ার্ডগুলো ভাল  করতেছে না ,তা যাচাই করুন এবং তারপরে ওই কনটেন্ট এ আরো তথ্য, স্ক্রিনশট, এলএসআই কীওয়ার্ড এগুলা  আপডেট করুন ।

আশা করা যায় , আপনার ওয়েবসাইটের রেঙ্কিং গ্রথ হবে।

লং টেইল কীওয়ার্ড

লং টেইল কীওয়ার্ড বলতে যে কিওয়ার্ড গুলা চার শব্দের অধিক হয়ে থাকে,

ভিজিটর এখন লং টেইল কিওয়ার্ড দিয়ে বেশি সার্চ করে। লং টেইল কীওয়ার্ড সুবিধাটি হ’ল এটি রেঙ্ক করা সহজ এবং  ইউজার কোনো পন্য কেনার জন্য এই কিওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকে।

উদাহরণ:

Short Tail Keywords: Best baby furniture.

Long Tail Keywords: Best baby furniture Under $5k

আজ এ পর্যন্তই যদি ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট এ আপনার মতামত জানাতে ভুলবেন না ভাই-ব্রাদার।।