আপনি যদি লোকালি আপনার ব্যবসা বা কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত করতে চান তাহলে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর মাধ্যমে আপনার টার্গেটেড লোকাল মার্কেটে ব্যবসার সফলতায়  অনেক বড় ভূমিকা রাখে। আপনার টার্গেটেড কাস্টমার যেহেতু সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে সেই প্রোডাক্টটাই খুঁজছে যেটা আপনি আপনি সার্ভিস/প্রোডাক্ট হিসেবে দিয়ে থাকেন। তাই আপনি হয়তো চাইবেন টার্গেটেড কাস্টমার আপনার ওয়েবসাইট আসার জন্য তাই নয় কি ? তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক লোকাল SEO করতে কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে; 

লোকাল এসইও চেকলিস্ট ২০২০:

1) Optimize Your Google My Business Listing: গুগল মাই বিসনেস এ আপনার ওয়েবসাইট লিস্টিং এর মাধ্যমে আপনি আপনার টার্গেটেড কাস্টমারদের কাছে সহজেই পোঁছাতে পারেন। আপনি যদি লোকাল সার্চ এ রাঙ্ক করতে চান বা টার্গেটেড ভিসিটর/কাস্টমারদের পেতে চান তাহলে গুগল মাই বিসনেস লিস্টিং এর বিকল্প নাই। গুগল মাই বিসনেস এ একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন অবশ্যই NAP= Name, Address, Phone number ঠিক রাখবেন।

2) Utilize Social Media: সোশ্যাল মিডিয়া আপনার বিসনেস এর টার্গেট পূরণের জন্য পরীক্ষিত টুলস। যেহেতু বর্তমান সময় মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতেই একটিভ থাকতে পছন্দ করে তাই আপনি সহজেই আপনার ব্যবসার টার্গেটেড কাস্টমার এইখান থেকে পেতে পারেন।

3) Reach Out for Reviews: আপনার প্রোডাক্ট কেনার আগে কাস্টমার চাইবে প্রোডাক্টটি সম্পর্কে জানতে বা যারা ব্যবহার করেছে তাদের মতামত বা ফিডব্যাক কেমন ? আপনি আপনার ওয়েবসাইট এ কাস্টমার রিভিউ নিতে পারেন বা ইমেইল এর মাধমেও নিতে পারেন। রিভিউ থাকলে কাস্টমার যাতে ফিডব্যাক দেখে প্রোডাক্টটি কিনতে পারে তাই রিভিউ রাখাটা জরুরি।

4. Use SEO-Friendly URLS: সার্চ ইঞ্জিন পছন্দ করে টপিক অনুযায়ী ছোট ইউআরএল। আপনার ইউআরএল স্ট্রাকচার যদি ঠিক না থাকে তাহলে সার্চ ইঞ্জিন রাঙ্কিং এ প্রভাব পড়বে। যদি আপনার ইউআরএল হয় www.yourwebsite.com/1234/567/find_info তাহলে সার্চ ইঞ্জিন আপনার ইউআরএলকে ফ্ল্যাগড করতে পারে স্প্যাম লিংক হিসেবে যার কারণে আপনার সাইট পেনাল্টি খেয়ে যেতে পারে।

5. Don’t Forget SEO Titles and Descriptions: এসইও তে মেটা টাইটেল ও মেটা ডেসক্রিপশন অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনার লোকাল এসইও ওয়েবসাইটটি যেনো টাইটেল ও মেটা ডেসক্রিপশন দিতে ভুলবেন না এবং যাতে এসইও ফ্রেন্ডলি থাকে।

6. Pay Attention to Backend SEO as Well as Frontend SEO: আপনি শুধু ওয়েবসাইট ডিসাইন, কনটেন্ট, ব্যাকলিংক ও উপরের কাজ গুলো করলেই হবে না আপনি যদি সার্চ রেজাল্টস এ ভালো কিছু করতে চান তাহলে ব্যাকহ্যান্ড এসইও বা টেকনিকাল এসইও গুরুত্বপূর্ণ। আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে আপনার সাইটম্যাপ ঠিক আছে কি না? বা সকল পেজ ইনডেক্স আছে কিনা?

7. Get Backlinks, Get Referrals: রিলেভেন্ট লোকাল ব্যাকলিংক আপনার ওয়েবসাইট এর রাঙ্কিং এর উপর বেশ ভালো প্রভাব ফেলে। যত বেশি রেফারাল ডোমেইন হবে ততো বেশি ট্রাফিক আসার সম্ভাবনা। আপনি যদি রিলেভেন্ট সাইট থেকে ব্যাকলিংক আনতে পারেন তাহলে,আপনার ট্রাফিক ও রাঙ্কিং দ্রুত বাড়বে। লোকাল এসইওতে লোকাল সাইট গুলাতেই ব্যাকলিংক করবেন।

8. Use Outbound Links and Internal Links, Get Credibility: আউটবাউন্ড লিংক দেয়াটা এসইও প্রাকটিস এর মধ্যে অন্যতম। আপনি আপনার কনটেন্ট থেকে অবশ্যই রিলেভেন্ট ভালো কোনো ওয়েবসাইটকে লিংক দিবেন যেখানে একই টপিকে রিসৌর্স পাওয়া যাবে। অন্য দিকে, ইন্টারলিংক বলতে আপনার ওয়েবপেজ বা পোস্ট থেকে অন্য পোস্ট বা পেজ এ লিংক দেয়াকেই বুঝায়। আপনার ইন্টারলিংক অবশ্যই যাতে রিলেভেন্ট হয়।

9. Don’t Forget Schema: স্কিমা বা স্ট্রাকচার্ড ডাটা লোকাল এসইও তে অনেক বেশি প্রয়োজন। প্রধানত যদি বিসনেসটা যদি ফিজিক্যাল হয়ে থাকে। স্কিমা সার্চ ইঞ্জিনকে বুঝতে সাহায্য করবে আপনার ব্যবসার ধরণটা কিরূপ।

10. Leverage the Power of Google Maps: আপনার বিসনেস লোকেশন সরাসরি আপনার about us ও contact পেজ এ গুগল ম্যাপ অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন আপনার বিসনেস এর ফিজিক্যাল লোকেশন বুঝতে পারে।

11. Yes, NAP Is Still Relevant: NAP= নাম, এড্রেস ও ফোন নাম্বার। ভিসিটর যখন তার প্রয়োজনীয় সার্ভিস/ প্রোডাক্ট খুঁজে তখন সে যদি সহজেই ফোন নাম্বার বা এড্র্রেস পেয়ে যায় তবে আপনার ইউসার এক্সপেরিয়েন্স যেমন ভালো হবে তেমন আপনার আপনার প্রোডাক্ট/সার্ভিস এর সেলর সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

12. Know Your Keywords Don’t over do it: লোকাল SEOতে আপনাকে কীওয়ার্ড সম্পর্কে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে যদি আপনি সেই কীওয়ার্ড এ ও রিলেভেন্ট সার্চ এ রাঙ্ক করতে চান। কনটেন্ট এ কীওয়ার্ড ন্যাচারাল রাখবেন। বর্তমানে সার্চ ইঞ্জিন অনেক বেশি স্মার্ট আপনি যদি কীওয়ার্ড স্তুফিং করেন তবে রাঙ্ক তো পাবেন না বরং উল্টা পেনাল্টি খেয়ে যাবেন।

13. Be In the Know About Your Site’s: আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে জেনারেল এসইও ও লোকাল এসইও লোকাল সার্চ রেজাল্টস এ দুইটি অনেক ভিন্নতা আছে। লোকাল এসইও’র ক্ষেত্রে গুগল সার্চ রেজাল্ট অপটিমাইজড করে থাকে ফিজিক্যাল লোকেশন এর উপর। তারমানে লোকাল বিসনেস এর ক্ষেত্রে আপনাকে অনেক বেশি সচেতন হতে হবে কিভাবে সার্চ রেজাল্টর জন্য কীওয়ার্ড টার্গেট করতে হবে। এই কীওয়ার্ড টার্গেটিং তা আবার লোকেশন থেকে লোকেশন এ ভিন্ন হবে।

14. Never Forget About Mobile: বর্তমান পৃথিবীতে স্মার্ট ফোন ব্যবহারকরি অনেক। তাই এখন কোনো কিছু সার্চ করতেও ফোন ব্যবহার করা হচ্ছে অনেক বেশি। তাই আপনার লোকাল বিসনেস বা সার্ভিস অবশ্যই মোবাইল অপ্টিমাইজ না হলে আপনি ট্রাফিক ও লিড দুটোই হারাবেন। মোবাইল ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট তাই অনেক বেশি জরুরি।