Last Updated on

অনলাইন থেকে আপনি যদি ইনকাম করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। যারা অবশ্য নতুন কাজ শুরু করেছেন তাদের অবশ্যই আগে কাজ ভালো করে শিখে তারপর অনলাইন এ রিমোট কাজে আসা উচিত। আজ ঐ সব বিষয় গুলা নিয়ে আলোচনা করবো কি কি উপায়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন।

1) Youtubing: ইউটিউবিং হচ্ছে আপনি নিজেই যেকোনো বিষয় নিয়ে ভিডিও বানিয়ে তা ইউটিউব এ পাবলিশ করবেন অবশ্যই তা ভিসিটরদের চাহিদা অনুযায়ী ও ইউটিউব কর্তৃপক্ষের রুলস অনুযায়ী। পরবর্তীতে আপনার চ্যানেল এর ভিডিও এর ভিউ ও সাবস্ক্রাইব যত ভালো হবে ইউটিউব এ আপনি ততো ভালো ইনকাম করতে পারবেন।

2) Google Adsence : ব্লগিং এর মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ভাবে ইনকাম করতে পারেন তার মধ্যে গুগল এডসেন্স অন্যতম। আপনি আপনার ব্লগ এ ভিসিটরদের চাহিদা অনুযায়ী কনটেন্ট পাবলিশড করবেন তারপর ঐ কনটেন্ট এর মধ্যে গুগল অ্যাড বসিয়ে সেই অ্যাড থেকে ক্লিক ও ইম্প্রেশন থেকে ইনকাম আনতে পারেন।

3) Article writing : যেকোনো ওয়েবসাইট এ আর্টিকেল দরকার হয় কম বেশি। তাই আর্টিকেল রাইটারদের ডিমান্ডটা একটু বেশি। আপনি চাইলে আর্টিকেল রাইটিং করেও ইনকাম করতে পারেন।

4) CPA Marketing: CPA বা কস্ট পার অ্যাকশন দিয়ে আপনি ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন যদি আপনি ওয়েবসাইট থেকে ভিসিটরদের রেজিস্ট্রেশন বা সাইন আপ করাতে পারেন তাহলে আপনি এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

5) Web Develo[pment: ওয়েব ডেভেলপ এর ব্যাক এন্ড ও ফন্ট এন্ড ২ ধরনের কাজ হয়ে থাকে আপনি যেকোনো একটির মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

6) Graphics Design: গ্রাফিকস এর মধ্যে আপনি বিভিন্ন সেক্টর আছে যেমন লোগো ডিসাইন, ফটোশপ ইলাস্ট্রেটর এই গুলোর যেকোনো একটির কাজ শিখে অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন।

7) Affiliate Marketing: এফিলিয়েট মার্কেটিং আপনি ২ ভাবে করতে পারেন যেমন ব্লগ করে আমাজন সহ ebay, কমিশন জংশন আরো অনেক প্লাটফ্রম। ভিডিও কনটেন্ট এর এফিলিয়াটে মধ্যে আলিবাবা অন্যতম।

8) SEO: অর্গানিকভাবে আপনার ওয়েবসাইট এ ভিসিটর আনতে এসইও প্রধান মাধ্যম। আপনি ক্লায়েন্ট এসইও র মাধ্যমে সহজেই ইনকাম করতে পারেন। যেমনঃ আপওয়ার্ক, ফ্রীলান্সার, ফাইবার ইত্যাদি মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারেন।

9) Individual Affiliate Marketing: আপনি সহজেই বিভিন্ন ইন্ডিভিজুয়াল কোম্পানি থেকে এফিলিয়েট লিংক এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন। এটি এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক থেকে ভিন্ন যেমন আপনি চাইলে blue host, HostGator, Flipkart, AWeber, SEMRush মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারেন।

10) Data Entry: ডাটা এন্ট্রি মাধমেও আপনি সহজেই ইনকাম করতে পারেন। পিডিএফ থেকে ওয়ার্ড ফাইল এ কনভার্ট বা ওয়ার্ড থেকে এক্সেল শিট এ কনভার্ট করার মাধ্যমে সকল তথ্য সঠিকভাবে বসানোর মাধ্যমে কাজ সম্পাদণ করে ইনকাম করতে পারেন।

11) Stock Photography: আপনি যদি ভালো ছবি তুলতে পারেন তাহলে আপনি বিভিন্ন ব্লগার ও অন্যান্য ওয়েবসাইট এ আপনার ছবি বিক্রি করতে পারেন। যেমনঃ শাটারস্টক এর মতন ওয়েবসাইট।

১২) Writing review: অনলাইন এ আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট এর জন্য রিভিউ লিখে ইনকাম করতে পারেন। যেমনঃ রেস্টুরেন্ট; প্রোডাক্ট

13) Freelancing Gig : ফ্রীল্যাংসিং গিগস তৈরী করে আপনি রিমোটলি জব করতে পারেন। যেমনঃ আপনি চাইলেই ফাইভার, আপওয়ার্ক ও অন্যান্য মার্কেট প্লেস এ কাজ করতে পারেন।

14) URL shortner: আপনি ইউআরএল শর্ট সার্ভিস দিয়েও ইনকাম করতে পারেন যেমন bitly ও গুগল ইউআরএল শর্টনার এর মাধ্যমে।

15) A Software, An App or A Web Solution: আপনি যদি সল্যুশন নিয়ে আসতে পারেন কোনো সফটওয়্যার, app অথবা ওয়েব সল্যুশন নিয়ে তাহলে ঐ সল্যুশন এর মাধ্যমে আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন।  

16) SEM: সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM) হচ্ছে SEO’র বর্ধিত রূপ। এই ক্ষেত্রে আপনি SEO সাথে মার্কেটিংটাকেও ফোকাস করবেন।

17) Email Marketing: ইমেইল মার্কেটিং টা আসলে নিউস লেটার এর মতন আপনি লিস্ট করা মেইল আইডি গুলায় মেইল করবেন ভবিৎষততে তাদেরকে কনভার্ট করে প্রোডাক্ট সেল করার জন্য।

18) Email list or Database Selling: আপনার কাছে থাকা ইমেইল লিস্ট মার্কেটেরদের কাছে বিক্রি করতে পারেন। হাজার হাজার ইমেইল লিস্ট থাকতে পারে আপনার কাছে কিন্তু লিস্টটি যদি রিলেভেন্ট না হয় তাহলে তো তা থেকে ইনকাম করতে পারবেন না।

19) Social Media Marketing: আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়া সাথে পরিচিত থাকেন তাহলে ইউটুব, ফেইসবুক, টুইটার এর মাধ্যমে আপনি মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারেন কারণ অনেক কোম্পানি আছে যারা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটটার খুঁজে।

20) Domain Flipping: আপনি যদি ভালো নাম দেখে ডোমেইন কিনে রাখতে পারেন তবে সেই ডোমেইন আপনি ১০ থেকে ২০ গুন্ দামে বিক্রি করতে পারবেন।

21) WordPress Plugins: বিভিন্ন কোম্পানি তাদের ওয়েবসাইট এ ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ব্যবহার করে থাকে। ওয়েবসাইট ডিসাইন এর ক্ষেত্রে বিভিন্ন কোম্পানি এক্সপার্টদের নিয়ে থাকেযারা কিনা ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন সমন্ধে জানে। তাই আপনি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন এক্সপার্ট হয়েও অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন।

22) Website Flipping: এইটি ডোমেইন ফ্লিপিং এর মতন কিন্তু এই ক্ষেত্রে আপনাকে একটি ওয়েবসাইট এ ভালো কনটেন্ট দিতে হবে SEO করতে হবে; সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করতে হবে তারপর যখন ঐ ওয়েবসাইট থেকে আপনি ভালো সেল পাবেন বা ভালো ট্রাফিক আশা শুরু করবে তখন আপনি ২০ থেকে ৩০ গুন্ বা তার থেকে বেশিতে বিক্রয় করতে পারেন।

23) Coding Services: আপনি চাইলে কোডিং করেও ইনকাম করতে পারেন সেই ক্ষেত্রে আপনাকে কোডিং করা ও প্রব্লেম হলে সল্ভ করতে হবে
24) Web Designing with PHP: PHP-তে ওয়েব ডিসাইন করা তা কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন থেকে। আপনাকে কোডিং, ডিসাইন ও টেস্টিং এর জন্য আলাদা টীম রাখতে হবে।

25) Developing Mobile Apps: আন্দ্রিয়ড ও IOS ডিভাইস এর জন্য এপ্স ডেভেলপ করেও আপনি ভালো ইনকাম করতে পারেন অনলাইন থেকে।

26) Transcription: এই জবটি অনলাইনে সহজলভ্য। আপনি এক মাধ্যম থেকে অন্য মাধ্যমে ট্রান্সক্রিপশন করেও ইনকাম করতে পারেন। সেক্ষেত্রে মেডিক্যাল ট্রান্সক্রিপশন বেশি পাওয়া যায়।

27) Tech Support: বড় বড় কর্পোরেট কোম্পানিগুলা অনেক সাপোর্ট আউটসোর্স করে থাকে তার মধ্যে টেক সাপোর্টটি বেশি।

28) Web Assistant or Virtual Assistant: আপনি অনলাইন এ ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্স হিসেবেও কাজ করে ইনকাম করতে পারেন। আপনি মিটিং ও প্রেসেন্টেশন এর ডাটা প্রদানের মাধ্যমে ওয়েব অ্যাসিস্ট্যান্স এর কাজ করতে পারেন।

29) Surveys and Form Filling: বিভিন্ন ওয়েবসাইট আপনাকে দিয়ে বিভিন্ন জরিপের ফরম ফিলআপ করিয়েও আপনি অনলাইন এ ইনকাম করতে পারেন।

30) Online Focus Group: গুগল ও মাইক্রোসফট কোম্পানি গুলা তাদের ইউসারদের থেকে ফিড ব্যাক নিতে চায়। আপনি সেই ফিডব্যাক নিতে তাদের সহায়তার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

31) eBooks: ই-বুক বানিয়ে বিক্রির মাধ্যেমে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন। ধরুন আপনি ডগ ট্রেনিং নিয়ে ভালো জানেন আপনি ডগ ট্রেনিং এর উপর ই-বুক লিখেও ইনকাম করতে পারেন।

32) Sharing Content: আপনি যদি এমন কনটেন্ট তৈরী করতে পারেন যেটা ভাইরাল হবে তাহলে আপনি এমন কনটেন্ট বানিয়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন কনটেন্ট যেন ইউনিক হয়।

33) Membership Sites: এমন সাইট তৈরি করলেন যেখানে প্রব্লেম সল্ভ করা হয়। যখন ট্রাফিক বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি মেম্বারশিপ চার্জ এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

34) Revenue Sharing Sites: আপনি যদি এক্সপার্ট হয়ে থাকেন যেকোনো বিষয়ে তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স বা এফিলাট এর মাধকে ইনকাম করতে পারেন। এমন অনেক সাইট আছে যেখানে আপনি আপনার এক্সপেরিন্স শেয়ার করে ইনকাম করতে পারেন। শুধু সাইন আপ করে লিখা শুরু করুন। যেমন : InfoBarrel.com, HubPages, Xomba, Snipsly

35) Desktop Publishing: আপনি ফটোশপের মাধ্যমে ম্যাগাজিনে ফন্ট পেজ ডিসাইন, পাবলিকেশন্স এ ডিসাইন করে সহজেই ইনকাম করতে পারেন।

36) Selling Old Books Online: আপনার যদি পুরাতন বই থাকে তাহলে আপনি BookScouter এর মাধ্যমে বই বিক্রি করতে পারেন। আপনাকে IBNS নম্বর ব্যবহার করার পর সেলিং প্রাইস এর বিড করতে দেয়া হবে।

37) Make Money Selling Gadgets: আপনি ল্যাপটপ, iphone, অন্যান্য গ্যাজেটস বিক্রয় করে ইনকাম করতে পারেন। সেই ক্ষেত্রে আপনি কম টাকায় গ্যাজেটস কিনে কিছু বেশি মূল্যে অনলাইনে সেল দিতে পারেন।

38) Stock Trading: আপনি ব্রোকারেজ এর মাধ্যমে স্টক, মিউচুয়াল ফান্ড ট্রেডিং এর মাধমেও ইনকাম করতে পারেন।

39) Forex Trading: আপনি ফরেক্স ট্রেডিং এর মাধমেও ইনকাম করতে পারেন যদিও কিছু দেশে এই ট্রেডিং নিষিদ্ধ।

40) Sponsoring Links and Sponsored Post: আপনি আপনার ওয়েবসাইট থেকে লিংক স্পন্সরড বা পোস্ট স্পন্সরড করে ইনকাম করতে পারেন।

41) Paid or Sponsored Tweet: আপনি অন্যের হয়ে টুইট করেও ইনকাম করতে পারেন। অনলাইন এ এমন কোম্পানি আছে যারা স্পন্সরড টুইট টাকার বিনিময়ে করিয়ে থাকে।

42) Facebook Paid to Like: আপনি ফেসবুক লাইক এর মাধ্যমেও ইনকাম করতে পারেন তবে এরকম জব অনেক কম এবং ইনকামও কম।

43) Product Testing: অনেক কোম্পানি আছে তারা আপনাকে প্রোডাক্ট দিবে আপনি ব্যবহার করে তাদের ডেটাইলেড দিয়ে মেইল করবেন তারা এই ফিডব্যাক এর বিনিময় আপনাকে পেইড করবে।

44) Domain Name and Hosting Service: আপনি ডোমেইন নাম ও হোস্টিং সার্ভিস সেল করেও অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। 

45) Playing Online Games: অনলাইন গেম খেলেও অপি ইনকাম করতে পারবেন। অনেক কোম্পানি আছে অনলাইন এ গেম বানায় তারা চায় তাদের গেম মানুষ খেলুক ও সমস্যা থাকলে তাদের ফিডব্যাক দিক।

46) Online Beta Version Software Testing: অনেক কোম্পানি আছে যাএকটি সফটওয়্যার মার্কেট এ ছাড়ার আগে সফটওয়্যারটি টেস্ট করতে hire করে থাকে। আপনি সফটওয়্যার টেস্টিং করেও অনলাইন এ ইনকাম করতে পারেন।

47) Selling Insurance Online: ইন্সুরেন্স কোম্পানি এর বদলে আপনি তাদের ইন্সুরেন্স সেল করে দিতে পারেন যার মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারেন।

48) Ecommerce Site: ই-কমার্স সাইট গুলা এখন কেনা বেচায় বেশ জনপ্রিয়। আপনি আপনার লোকাল মার্কেটকে টার্গেট করে ই-কমার্স সাইট তৈরী করতে পারেন এবং সহজেই ইনকাম করতে পারেন।

49) Buying and Selling on Craigslist, Quikr etc: আপনি কোনো প্রোডাক্ট Craigslist বা Quikr থেকে কম দামে কিনে Craigslist মতন অন্যান্য সাইট এ সেল করে ইনকাম করতে পারেন।

50) Car/Bike Review/Comparison Portal: গাড়ি ও বাইক বিক্রয় করা পোর্টাল গুলা অনেক বেশি পপুলার। গাড়ি অনেকে নতুন নতুন মডেল কিনতে চায়। কেনার আগেই তারা রিভিউ দেখে নিতে চায়। আপনি রিভিউ এর মাধমেও ইনকাম করতে পারেন।