mistakes-gets-banned-amazon-affiliate

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট ব্যান হওয়ার কারণ কি কি? কোন কোন ভুল করা থেকে বিরত থাকবেন?

Last Updated on

আজ আমি কথা বলবো কেন আমাজন এফিলিয়েট লিংক ব্যানড করে বা যে সকল কাজ করলে আমাজন এফিলিয়েট লিংক ব্যানড করে দেয়।

১. আপনার সাইটটিকে আমাজন ড্যাশবোর্ডে অন্তর্ভুক্ত না করা:

আপনার সাইটটি আমাজন ড্যাশবোর্ড এ অন্তর্ভুক্ত করুন যদি না করে থাকেন তো। যখন আপনি সেল পেতে আরম্ভ করবেন যদি আপনার সাইট আমাজন ড্যাশবোর্ড এ অন্তর্ভুক্ত না থেকে থাকে তবে আমাজন আপনার এফিলিয়েট লিংকটি কে ব্যানড করে দিবে। তাই সাইটটিকে আমাজন ড্যাশবোর্ডে অন্তর্ভুক্তখুবই গুরুত্বপূর্ণ।

২.অ্যাসোসিয়েট একাউন্ট আগেই করা :

আমজোন অ্যাসোসিয়েট একাউন্ট যদি করা হয় তবে অবশ্যই ৯০ দিনের মধ্যে সেল অস্থায়ী হবে না হলে একাউন্ট ব্যানড করে দিবে আমাজন কর্তৃপক্ষ। তাই সাইট এ আগে কিছু ট্রাফিক আসার পর অ্যাসোসিয়েট একাউন্ট করাটাই ভালো।

৩.ই-বুকস ও ইমেইল মার্কেটিং “No”:

আপনার e-books এ আমাজন Affaliate link use করা যাবে না ও ইমেইল মার্কেটিং এ কখনোই আমাজন এফিলিয়েট লিংক ব্যাবহার করা যাবে না। করলেই আপনার আমাজন একাউন্ট ব্যানড করে দিবে।

৪. আমাজানের Features কপি করা যাবে না :

আমাজানের যে প্রোডাক্ট কনটেন্ট/ ফিচারস দেয়া থাকে ঐটা কপি করা থেকে বিরত থাকুন। যদি করেন তাহলে আমাজন আপনার অ্যাসোসিয়েট লিংক ব্যানড করে দিবে।

৫. আপনার সাইটটির Disclaimer দিন:

আপনার সাইটটি আমজোন অ্যাসোসিয়েট প্রোগ্রাম এ অন্তর্ভুক্ত হিসেবে Disclaimer দিন। ডিসক্লেইমার টি  হবে এমন ; My website.com is a participant in the Amazon Services LLC Associates Program, an affiliate advertising program designed to provide a means for sites to earn advertising fees by advertising and linking to Amazon.com. Additionally, My website.com participates in various other affiliate programs, and we sometimes get a commission through purchases made through our links.

৬. প্রোডাক্ট ইমেজ:

অনেক সময় আমরা old school method ফলো করে থাকি। আমাজন থেকে প্রোডাক্টের ডাইরেক্ট ইমেজ নিয়ে থাকি। তারপর রি-সাইজ করে ইমেজ ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু যখন আমাজন একাউন্ট করি তখন যদি site strip বা inserter plugin ব্যবহার না করি তাহলে সমস্যা ব্যানড খাবেন।

৭. আপনার এফিলিয়েট লিংক থেকে আপনি কোনো কিসু কিনলে :

নিজের এফিলিয়েট লিংক ধরে আপনি যদি কিছু কিনেন তাহলে আপনার একাউন্ট ব্যানড হবে।

৮. একটার বেশি একাউন্ট করলে :

আপনি যদি আমাজন একাউন্ট একের অধিক করে থাকেন বা পরিচালনা করেন তাহলে আপনি ব্যানড খাবেন।

৯. পর্ন বা জুয়ার সাইট এর লিংক :

আপনি যদি পর্ন বা জুয়ার সাইট এর লিংক প্রোমোট করেন তাহলে আপনি আমাজন অ্যাসোসিয়েট থেকে সহজেই ব্যানড খাবেন।

১০. নির্দিষ্ট সময়ে সেল না পাওয়া :

আমাজন অ্যাসোসিয়েট নিয়ম অনুযায়ী আপনি যদি ৯০ দিনের মধ্যে ৩ টি সেল না পান তাহলে আপনার অ্যাসোসিয়েট একাউন্ট ব্যানড হবে।

১১. ছাড় প্রদান :

আমাজন এর কোনো অফার ছাড়া আপনি যদি নিজের মতন প্রোডাক্টে ছাড় প্রদান করেন তাহলে আপনার অ্যাসোসিয়েট একাউন্টটি ব্যানড হবে।

এছাড়াও আরো অনেক কারণ আছে আমাজন Associate একাউন্ট ব্যানড করার জন্য। সেগুলো হচ্ছে;

আপনার লিংক দিয়ে প্রোডাক্ট কিনলে এক্সট্রা বেনিফিট কথা দেয়া হবে এমন কোনো কিসু বলা যাবে না। ১৩ বছরের নিচের কেউকে buyer হিসেবে টার্গেট করা যাবে না। আমাজন ইমেজ direct নিয়ে আপনার ওয়েবসাইট -এ আপলোড করতে পারবেন না।

About the author

Yaqub Nipu

আমি মোঃ ইয়াকুব একজন এসইও শিক্ষানবিশ এবং NShamimPRO কোর্স এর একজন মেম্বার। নাসির উদ্দিন শামীম ভাই এর অনুপ্রেণায় এসইও কাজ শুরু করি এবং নিজের ব্লগ দাড় করাই। ব্লগ দাড় করতে গিয়ে যে সকল সম্যসার সম্মুখীন হয়েছি এবং যে সব কিছু মাথায় থাকতে হবে তাই নিয়েই আমার লিখা লিখি। আমিও এখনো একজন লার্নার, তাই  বলবো জানতে থাকুন ও নতুন নতুন জিনিস শিখতে থাকুন।

View all posts

Leave a Reply