এসইও/ব্লগিং/অ্যাফিলিয়েশন নিয়ে আমাদের যতো ভুল ধারণা (পর্ব ০২)

Misconceptions পর্ব ২ 

সবাইকে স্বাগতম! 🙂 

নতুন কোন ধারণা, যুক্তি বা আইডিয়াকে আমরা সহজে মেনে নিতে পারি না। আমাদের বাংলাদেশের জন্যেতো এটা একটা ট্যাবু! সাদা চামড়ার মানুষেরা (বাংলাদেশের বাইরের যে কেউ :P) কিছু একটা বললে আমরা সেটা ধ্রুব বলে মানি। এর বাইরে কেউ কিছু জানাতে চাইলে, কিছু একটা নতুন লজিক নিয়ে আসলে – সেটাকে আমাদের নিজেদের যোগ্যতার বা চিন্তা/পরীক্ষা করার ক্ষমতার মাপকাঠিতে মাপার চেষ্টা করি। ঐ মাপযন্ত্রের লিমিটের বাইরে গেলেই সেটা হয়ে যায় ভুল। 🙂 

এইসব ভুল নিয়েই আমাদের Misconceptions সিরিজের আজকে ২য় পর্ব। ১ম পর্বটা দেখতে চাইলে এইখানে যান – https://www.facebook.com/groups/seobynshamim/permalink/2874488582788423/ (ঐ মাস্টারমাইন্ড গ্রুপে না থাকলে, জয়েন করে ফেলুন। কারণ – ইটস অ্যা হিডেন জ্যাম 🙂 ) 

আজকে কথা বলবো নিস (Niche) নিয়ে। 

নিস সিলেকশন করতে গেলেই দেখবেন অনেকে বলে -“ভাই, এইটা অনেক কম্পেটিটিভ একটা নিস, এই নিসে ব্লগ বানাইয়েন না, র‍্যাঙ্ক করতে পারবেন না”। 

এইটা যে কতো বড় একটা ভুল, সেটা নিয়েই আজকের আলোচনা। সাথেই থাকুন। 🙂 

পৃথিবীতে যতো YMYL নিস (https://bn.nshamim.com/ymyl/) আছে, একমাত্র সেগুলো ছাড়া (যদি আপনার এক্সপার্টাইজ না থাকে)  আর বাকি যতো নিস আছে, প্রায় সব নিসেই আপনি ব্লগ বানাতে পারবেন। 

কারণ – আমরা যখন ব্লগ বানাই তখন আসলে নিস এর মধ্যে থেকে, তার ছোট ছোট  টপিক ফোকাস করি। আর একটা নিসে হাজার হাজার এন্টিটি থাকে। যারা NLP নিয়ে পড়াশুনা করেছেন, তারা জানেন, একটা সিঙ্গেল নিস থেকে গুগল হাজার হাজার রিলেটেড এন্টিটি এক্সট্রাক্ট করে। সুতরাং ঐ এন্টিটিগুলো কানেক্ট করেই গুগল বুঝে ফেলে এইটা কোন টপিকের উপর লিখা এবং সেইটা কোন নিসের।  

সুতরাং নিস কোন ফ্যাক্টর না – ঐ ইন্ডিভিডুয়াল টপিক বা এন্টিটি অথবা ঐ টপিক পেজে থাকা এন্টিটিগুলো ফ্যাক্টর। 

সামগ্রিকভাবে বললে, এমন কোন নিস নাই, যেটা এখনো আন-ট্যাপড। মানে, টাকা আয় করা যায় বা ভবিষ্যতে আয় করা যাবে সেটার উপর বেইজ করে এমন কোন নিস নাই যেটা নিয়ে ব্লগার বা মার্কেটার বা বিজনেস/সার্ভিস প্রোভাইডাররা কাজ করছে না। 

তারপরেও প্রতিদিন নতুন নতুন ব্লগ/ওয়েবসাইট হচ্ছে, তারা র‍্যাঙ্ক করছে, অ্যাড/এফিলিয়েট বা সার্ভিস সেল করা টাকা উপার্জন করছে। 

আর এক্সিস্টিং একটা ব্লগ বা ওয়েবসাইট থাকা মানেই, সে আপনার কম্পেটিটর। WebsiteSetup.Org এর মতে প্রতিদিন প্রায় ৫ লক্ষ ৭৭ হাজার ওয়েবসাইট (https://websitesetup.org/news/how-many-websites-are-there/) লাইভ হচ্ছে সারা পৃথিবীতে। লেস কম্পেটিটিভ নিস বলতে আদৌ কিছু থাকার কথা কি? 

সুতরাং, নিস কম্পেটিটিভ – এই কম্পেটিটিভনেসটা আসলে ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে খাটে না। এইটার কথা চিন্তা করলে কেউ নতুন ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানাতো না। কারণ, আমরা আসলে যখন সাইটে কন্টেন্ট দেই, তখন একটা স্পেসিফিক টপিকের উপর নির্ভর করে কন্টেন্ট বানাই যেটা ঐ নিসের সাথে সামঞ্জস্যপুর্ণ, পুরো নিসটাই একটা কন্টেন্টের ভিতর দিয়ে দেই না। তাই নয় কি? 

যেমন ধরুন – Smart Home একটা খুবই কম্পেটিটিভ একটা নিস যদি অভারল চিন্তা করেন। তবে যদি এই নিসে ব্লগ খুলেন, তখন আপনি Smart Home এর আন্ডারে ছোট ছোট টপিক কভার করবেন। যেমন best ring alarm flood and freeze sensor বা best ring alarm system। 

সুতরাং দেখতেই পাচ্ছেন, নিস এইখানে কতোটা কম্পেটিটিভ সেটা ম্যাটার না, ম্যাটার করে ঐ নিসের মধ্যে থেকেই আপনি সিঙ্গেল কোন টপিকটা কভার করছেন, সেটা কতোটা লেস কম্পেটিটিভ বা কতোটা ভালো কন্টেন্ট আপনি দিতে পারবেন ঐ টপিকের উপরে (প্রথম পাতার অন্যান্য রেজাল্টগুলোর চেয়ে)। 

একটা নিস থেকে যদি আপনি লেস কম্পেটিটিভ ৫০ থেকে ৭০টা টপিক বের করতে পারেন; তবে আপনি একদম আত্মবিশ্বাসের সাথেই ঐ নিসে ব্লগ স্টার্ট করে দিতে পারেন। হোক না নিসটা হিউজলি কম্পেটিটিভ। আপনার সেটা চিন্তা করারই দরকার নাই। 

চলুন দেখে আসি কিছু ওয়েবসাইট যেগুলো আমজনতার মতে হাই কম্পেটিটিভ নিস কভার করছেঃ 

LED Light অনেক বড় একটা ইন্ডাস্ট্রি এবং বেশ বেশ কমেটিটিভ। প্যারেন্ট নিস Smart Home. যদি এই নিসের টপ একটা কিওয়ার্ড বা টপিক দিয়ে সার্চ দেই, তাহলে দেখেন প্রথম পাতার সবাই বড় বড় জায়ান্ট। স্ক্রিনশটঃ https://go.nshamimpro.com/share/AKknhTCFsAuYyrcSdG9h

এই জায়ান্ট গুলোর সাথে আদতে কিন্তু আমরা কম্পিটিশনে যেতে পারবো না। তাই বলে কি এই নিসে কি টার্গেট করার মতো আর কোন টপিক নেই? 

এখন যদি এই কিওয়ার্ডটা দেখেনঃ best led strip lights for bedroom ceiling তাহলে দেখবেন মোটামোটি নতুন একটা সাইট, প্রথম পাতায় 6 নাম্বার পজিশনে আছে। স্ক্রিনশটঃ https://go.nshamimpro.com/share/5Ab5FRupIZH2tWlOY2YH

এবং, এই পেইজকে যদি আপনি আরো এনালাইসিস করেন; তাহলে দেখবেন- তার ইনডেক্স পেইজ ৭০টার মতো ইন টোটাল। এবং সে ahrefs মোতাবেক ১০০টার মতো ট্রাফিক পাচ্ছে শুধু এই পেইজ থেকেই ( ১৮৪টার মতো কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক পেয়েছে) এবং কোন ধরনের ব্যাকলিঙ্ক ছাড়াই র‍্যাঙ্ক করেছে। 

আপনি খুঁজলে এমন অসংখ্য কিওয়ার্ড পাবেন এই নিসে যেখানে তুলনামুলক নতুন সাইটগুলোও কোন ধরনের ব্যাকলিঙ্ক ছাড়াই প্রথম পাতায় আছে। 

এখন প্রশ্ন হচ্ছে – LED Light এবং স্মার্ট হোম এর মতো বিশাল বড় একটা নিসে এই ছোট/মাঝারি মানের সাইট কিভাবে র‍্যাঙ্ক পেলো? 

উত্তরঃ সে একটা খুবই স্পেসিফিক টপিক (এবং লঙ টেইল) টার্গেট করেছে। 

মন্তব্যঃ নিস ব্যাপার না, ব্যাপার হচ্ছে আপনার টার্গেট করা টপিক। 

চলুন আরেকটা নিস দেখি। 

AuthorityHacker এর মতে (https://www.authorityhacker.com/golf-affiliate) Golf Affiliate ইন্ডাস্ট্রি এর ভ্যালু $12.55 billion ডলার। একটু চিন্তা করুন এইখানে কম্পেটিশন কেমন পরিমাণ হতে পারে? 

যাই লিখে সার্চ দেন, দেখবেন সব বড় বড় গলফ সাইট র‍্যাঙ্ক করে বসে আছে এবং ম্যাক্সিমামই অ্যামাজনের অ্যাফিলিয়েট। 

চলুন একটা কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ দেইঃ Best Golf Grips For Wedges

নিস কম্পেটিটিভ; তাহলে এই সাইটটা কিভাবে এক নাম্বারে আসলো? স্ক্রিনশট https://go.nshamimpro.com/share/cJ12Xd81wzmt50g8k477

আরেক্টু এনালাইসিস করলে অবাক হবেন! ঐ সাইটটা কোন লিঙ্কই করে নাই এই কিওয়ার্ডে র‍্যাঙ্ক পাওয়ার জন্যে! স্ক্রিনশটঃ https://go.nshamimpro.com/share/J6Sz6gXFYdit42Fp6Rgb

আপনি চেষ্টা করলেই এমন ৫০ -৬০টা সুপার লো কম্পেটিটিভ টপিক খুঁজে পেতে পারেন এই হাই কম্পেটিটিভ গলফ নিস থেকেই। 

তাহলে কি বুঝলেন? 

আর কোন উদাহরণ দরকার আছে? 

সুতরাং, কেউ মুখস্ত বলে দিলো এই নিস কম্পেটিটিভ, আর আপনি থেমে গেলেন। দেখবেন, ফেসবুকিং হলো, হাজারো পণ্ডিতের সাথে কুলাকুলি  হলো, অলিতে গলিতে – হাটে বাজারে দৌড়াদৌড়ি করে অনেক জ্ঞান নিলেন আর সেইসব অন্তঃসারশূন্য জ্ঞানের ভারে খাবি খেতে খেতে ব্লগিং করাটাই হলো না আপনার। 

চলে যাওয়ার আগে একটা মজার স্ট্যাটস শুনাই। গুগলের মতে (https://searchengineland.com/google-reaffirms-15-searches-new-never-searched-273786) – গুগলে প্রতিদিন মানুষ যা যা সার্চ করে, তার ১৫% একদমই নতুন। মানে ঐ কিওয়ার্ড দিয়ে এর আগে গুগলে কেউ সার্চ দেয় নাই। 🙂 এখন চিন্তা করেন, গুগলের কাছেই সার্চের সব ডাটা নাই – সেখানে আমরা ahrefs, semrush আর অন্যসব থার্ডপার্টি টুলের ডাটা দেখে মুখস্ত বলে দেই এই নিস কম্পেটিটিভ এবং এই নিসে লো কম্পেটিটিভ কিওয়ার্ড আর খুঁজে পাওয়া যাবে না। হাস্যকর, তাই না? 

সুতরাং, মাথা খাটান। 

এই “কম্পেটিটিভ নিস” শব্দটা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে দিন আস্তাকুড়ে (সাথে আর কি কি ফেলবেন সেটাও চিন্তা করুন)। ৫০ – ৬০ টা লো কম্পেটিটিভ খুঁজে বের করুন আপনার পছন্দের যেকোন নিস থেকে। তারপর দয়া করে ব্লগটা শুরু করে দিন। নতুন নতুন অনেক কিওয়ার্ড পাবেন ভবিষ্যতে। পর্যাপ্ত সময় দিলে (এইটা আবশ্যক, কারণ র‍্যাঙ্কিংটা সার্চ ইঞ্জিনের হাতে, আপনার হাতে নয়) একটা সময় ঠিকই মাথা তুলে দাঁড়াবে আপনার ব্লগ। 

যারা শুরু করেন নাই, বা আপনার নিস নিয়ে স্টাক হয়ে আছেন – আজ থেকে নতুন উদ্যমে শুরু করে দিন। 

শেয়ার করি ছড়িয়ে দিন – লাখো বাঙ্গালির মিসকন্সেপশন দূর হউক! 🙂

#Misconceptions

আপনার ইমেইলে বাংলায় ইন্টারনেট মার্কেটিং এবং এসইও রিলেটেড লেটেস্ট খবর ও আপডেট পেতে চান? সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

Leave a Comment

Share via
Copy link