Last Updated on

SEO & Internet Marketing একটা ভার্সেটাইল একটা সেক্টর। আপনি যদি ঠিক ঠাক শিখতে পারেন, তবে আপনার স্কিল আপনি বিভিন্নভাবে কাজে লাগাতে পারবেন। বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ এখনো মনে করে একমাত্র ফ্রিল্যান্সিং করেই অনলাইনে ইনকাম করা যায়। ফ্রিল্যান্স – আউটসোর্সিং এর বাইরেও যে অনেকভাবে শুধুমাত্র একমাত্র এসইও স্কিলটাকে ব্যবহার করে উপার্জন করা যায়; সেটা অনেকেই বিশ্বাস করতে চান না। 

আজকে আপনাদের সাথে একটা বিষয় শেয়ার করতে চাই। আমাদের স্টুডেন্টস গ্রুপে নিয়মিতই অনেকে তাদের সফলতার গল্প শেয়ার করেন। আমরা সবাই অনুপ্রাণিত হই। কিন্তু আজকের বিষয়টা ভিন্ন। সফলতারই গল্প, কিন্তু আমার কাছে এই গল্পের যেই বিষয়টা সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে সেটা হচ্ছে – প্রচণ্ড ইচ্ছাশক্তি আর একটা নতুন কিন্তু স্পেসিফিক বিষয় নিয়ে কাজে নেমে পড়া। অনলাইনে আমরা প্রচুর কেইস-স্টাডিজ পড়ি, প্রচুর ভিডিও দেখি – কিন্তু সেটার উপর কাজ করা এবং সাফল্য পাওয়ার জন্যে নিয়মিত এর পিছনে খাটা-খাটনি করা – সেই আসল জিনিসটা করতেই আমাদের যত আলসেমি। 

আসলে কাজটা করাই কিন্তু কঠিন, ভিডিও দেখা বা কেইস স্টাডিজ পড়া সহজ। আমাদের Abdullah Al Masud Rimon এই কঠিন কাজটাই সবরকমের জড়তা আর আলসেমি ভেঙ্গে শুরু করেছেন এবং সাফল্যও পাচ্ছেন। 

আইডিয়াটা মূলত Arman Mohd ভাই এর এবং এক্সিকিউশনটা Rimon ভাই এর। 

চলুন তার কথাই হুবহু নিচে দেয়া যাক – 

——— *** ——- 

আমি জানি আমার মত অনেকেরই নিশ সাইট শুরু করার পিছনে বড় একটা বাঁধা হল বাজেট প্রবলেম।

আজকে আমি আমার একটা গল্প শেয়ার করব, হাতে কোন কাজ না থাকলে পড়তে পারেন। 

যারা বাজেটের জন্য নিশ সাইট শুরু করতে পারতেছেন না পোস্টটি তাদের জন্য হয়ত একটু হলেও উপকারে আসতে পারে।

NShamimPro তে জয়েন করার পরে আমি বেশ কিছু নিশে কিওয়ার্ড রিসার্চ করেছি। যার বেশির ভাগই লো কম্পিটেটিভ কিওয়ার্ড ছিল, বাজেটের কারনে শুরু করতে পারিনি। 

কিন্তু বাজেটের অভাবে স্বপ্ন অধরা থাকবে তা কি করে হয়।
বাজেট সংগ্রহের জন্য আপওয়ার্ক এবং ফাইবারে চেষ্টা করেছি কম্পিটিশন বেশি থাকার কারনে আশানুরূপ ফল আসেনি।

বেশ কিছুদিন আগে আমাদের NShamimpro এর একবড় ভাই একটি পোস্ট করেছিল কিভাবে ব্যাকলিংক রিসোর্স সংগ্রহ করে বিক্রি করা যায় এবং ভবিষ্যতে ব্যাকলিংকের কেমন চাহিদা থাকবে এসম্পর্কে।
ওনার ঐ পোস্টের কথাগুলো আমাকে বেশ জোরালো ভাবে প্রভাবিত করেছিল। 

পরে আমি চিন্তা করলাম বাজেটের অভাবে মন খারাপ করে বসে থাকলে আমাকে কেও বাজেট দিয়ে যাবেনা, কিছু একাটা করা দরকার। 
যেই চিন্তা সেই থেকে কাজ শুরু, নেমে পড়লাম শামীম ভাইয়ের দেখানো রাস্তায় গেস্টপোষ্ট আউটরিচ করার কাজে। উদ্দেশ্য সব নিশ এর জন্য ব্যাকলিংক রিসোর্স সংগ্রহ করা।

কোন ক্লাইন্টের অর্ডার ছাড়াই গেস্টপোষ্ট আউটরিচ করা শুরু করলাম রেসপন্স ভালই পাচ্ছিলাম তবে সমস্যা হচ্ছে অধিকাংশই টাকা চাচ্ছিল গেস্টপোষ্ট গ্রহন করার জন্য।

যারা বেশি টাকা চাচ্ছিল তাদের সাথে দামাদামি করে একটা মিনিমাম বাজেট এর মধ্যে নিয়ে আসলাম।
এভাবে কিছুদিন চলার পর অনেকগুলা সাইট আসল যারা গেস্টপোষ্ট এ্যাকসেপ্ট করতেছে এবং এক্সিসটিং কনটেন্ট থেকে লিংক দিচ্ছে সাইট গুলার লিস্ট করলাম কে ফ্রিতে গেস্টপোষ্ট করতে দিচ্ছে, কে কতটাকায় গেস্টপোষ্ট করে দিচ্ছে এবং কে এক্সিসটিং কন্টেন্ট থেকে লিংক নিতে কত টাকা চাচ্ছে।

এখনো লিস্ট করেই যাচ্ছি হয়ত এই কোন একদিন এই লিংক রিসোর্সটাই আমাকে ভাল আউটপুট দিবে।

এর মাঝে টুকটাক লোকাল ক্লাইন্টের জন্য কাজ করতেছিলাম যেমন ব্যাসিক লিংক বিল্ডিং, এবং গেস্টপোষ্ট সার্ভিসও দিতেছিলাম। NShamimPro গ্রুপের কয়েকজন বড় ভাইকেও গেস্টপোষ্ট সার্ভিস দিয়েছি। 

আমার এক লোকাল ক্লায়েন্টের জন্য গেস্টপোষ্ট আউটরিচ করার সময় আমেরিকান এক ওয়েবসাইট ওনারের সাথে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমি তার সাইটে গিয়েছিলাম গেস্টপোষ্টের জন্য এবং গেস্টপোষ্টও করলাম তার সাইটে।
পরে তার সাইটের ট্রাফিক দেখার জন্য Ahrefs এ দিয়ে এক্সপ্লোর করলাম, লক্ষ করলাম তার বেশকিছু কিওয়ার্ড প্রথম পেইজের শেষ এবং দ্বিতীয় পেইজে আছে।

তাকে বললাম আপনি কিছু লিংক দেন এই কন্টেন্ট গুলোতে তাহলে র্যাংক ইমপ্রুভম হবে এবং রেভেনিউ দিগুণ হবে।

সে এ্যাডভাইসের সাথে সম্মতি জানালো এবং বলল আমি নিজেও SEO নিয়ে কাজ করি আমার অন্য প্রজেক্ট গুলো নিয়ে আমি ব্যাস্ত তাই এই প্রজেক্টএ সময় দিতে পারতেছি না। 

সে যে SEO কম্পানির জন্য কাজ করে ওই ওয়েবসাইটও আমাকে দেখালো। আমি দেখলাম যে বেশ বড় ১ টা কম্পানিতে মার্কেটিং প্রজেক্ট মেনেজার হিসেবে আছে।

এইখানে আমি একটু সুযোগ কাজে লাগালাম, বললাম যে তোমার হাতে যদি সময় না থাকে আমি তোমাকে গেস্টপোষ্ট আউটরিচ করে দিতে পারব। 
পরের দিন মেইল আসলো সে রাজি আমাকে দিয়ে আউটরিচ করাবে এবং তার প্রতিমাসে বেশকিছু ব্যাকলিংক লাগবে।

গত দুইমাস ধরে তার কাজ করতেছি, প্রতিমাসে একটা নিশ সাইটের জন্য মোটামুটি যে ব্যায় হয় তা আমার হাতে চলে আসে এই ক্লাইন্টের কাছ থেকেই।

পাশাপাশি আমার কাছে লিংক রিসোর্স এর লিস্টও কিন্তু ভারি হচ্ছে। 😎
এখন আবার শামীম ভাইয়ের দেখানো পথে মার্কেটপ্লেসের বাহিরে ক্লাইন্ট খোঁজার টেকনিক গুলা এপ্লাই করা শুরু করেছি। আশা রাখি কিছু ক্লাইন্ট পেয়েও যাবো দ্রুতই। 😊

মুলকথা হল আপনার যদি বাজেট নিয়ে সমস্যা থাকে তাহলে আপনাকে বাজেট সংগ্রহের জন্য কিছুনাকিছু করতেই হবে। 

শুধু শুধু আমার বাজেট নেই এই বলে মন খারাপ করে বসে থাকলে কোন লাভ নেই, তারথেকে কিছুএকটা করুন যা আপনার নিশ সাইটের জন্য বাজেট যোগাবে। 

কষ্টকরে পড়ার জন্য ধন্যবাদ, ভাল থাকবেন সবসময়।😊

দোয়া করবেন আমার জন্য।

——— *** ——- 

কি মনে হলো আপনাদের? 

হাত গুটিয়ে বসে না থেকে আজকেই কাজে নেমে পড়ুন। ইনভেস্টমেন্ট অথবা বাজেট না থাকলে সেটা কিভাবে ম্যানেজ করা যায় – তার সর্বোচ্চ চেষ্টা করুন। ধরুন আপনি ইংরেজি জানেন না, লিখতে জানেন না – এর জন্যে বসে আছেন। কিন্তু আপনার উচিত ইংলিশ শেখার পিছনে সময় দেয়া, নেক্সট ৩ মাসের প্লান করে ইংরেজি শেখা এবং তারপর এসইও অথবা ব্লগিং শুরু করা। ধরুন আপনার বাজেট নেই, ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে কাজ পাওয়ার চেষ্টা করা এবং ব্লগের জন্যে সেই টাকাটা জমা করা। এটাই মাইন্ডসেট, এটাই সফল মানুষের প্রধান বৈশিষ্ট্য। 

আমার মনে আছে, কলেজ লাইফে (২০০৪ সালে) আমি প্রতিদিন হাত-খরচের টাকা বাঁচিয়ে সাইবার ক্যাফেতে যেতাম peperonity এবং blogspot এ নতুন নতুন ব্লগ খুলতাম আর হাবিজাবি পোস্ট করতাম 🙂 – যেটা অবশ্য পরে অনেক কাজে লেগেছে। 

আজকে আপনি যে কাজটি করবেন, সেটার ফলাফল আজ অথবা কাল নাও পেতে পারেন। কিন্তু কোন না কোন দিন সেটা অবশ্যই সাফল্য বয়ে আনবে আপনার জন্যে। 

সবাই মার্কেটিং শিখে। অনেক টাকা খরচ করে কোর্স কিনে, কিন্তু আসলে যেটা সবচেয়ে বেশি দরকার – সেই কাজে নেমে পড়া লেগে থাকায় সবারই বেশ অনীহা। যার ফলাফল আসলে ভালো হয় না কখনোই। 

আপনি যদি এই সবার চেয়ে আলাদা হতে চান, তাহলে কাজে নেমে পড়ুন, সবার যেখানে অনীহা আপনি সেখানে আগ্রহের সাথে লেগে থাকুন, একটা মেথড কাজ না করলে, আরেকটা নিয়ে আগান কিন্তু আপনার ওই সাফল্য পাওয়ার জন্যে যেই প্লান করেছেন সেটাতে স্টিক থাকুন। 

শুভকামনা।