bangla seo success

অনলাইনে ব্লগিং অথবা ফ্রিল্যান্সিং এ সফল না হওয়ার ৫টি কারণ (সমাধান-সহ)

Last Updated on

ভেবে দেখেছেন কি?

অনলাইনের বিভিন্ন প্রজেক্টের ক্ষেত্রে (এসইও, নিস সাইট, অ্যাডসেন্স, অ্যামাজন, সিপিএ) একদম সেইম/এক্সাক্ট ফরমুলা/মেথড ব্যবহার করে কেউ কেউ সফল হচ্ছে। আবার কেউ কেউ ব্যর্থ হচ্ছে।

এর কারণ কি আসলে? রহস্যটা কি?

আমি কিছু কারণ খুঁজে বের করেছিঃ

১। ফোকাস না থাকা।

| পর্যাপ্ত সময় না দেয়া।

৩। আলসেমি।

৪। পুরো বিষয়টাই নিজের কাছে ভালো না লাগা। জাস্ট করতে হবে বলে করা।

৫। জাস্ট টাকা পাওয়া যাবে বলে করা, কিন্তু কাজটাই ভালো না লাগা।

পর্যাপ্ত ইনভেস্টমেন্ট না থাকা। 

মার্কেট প্লেস সম্পর্কে ভালো ধারণা না থাকা। 

সমাধানঃ

আপনি যদি আপনার সমস্যাটা খুঁজে বের করতে পারেন; তাহলে তার সমাধানও করতে পারবেন। যেমন ধরুনঃ

১। ফোকাস না থাকার একটা অন্যতম কারণ হচ্ছে অনেক কিছু একসাথে শুরু করা। যেমন একটা অ্যামাজন অথবা অ্যাডসেন্স সাইট এর পরিবর্তে একসাথে টা সাইট শুরু করা। দেখা যায়, এন্ড অব দ্যা ডে, একটা সাইটও সফল না। কারণ ফোকাসের অভাব। আমার জন্যে এই শিক্ষাটা অনেক কস্টলি হয়েছে। কারণ আমার ঠিক এমন বদঅভ্যাস ছিল একটা সময়।

২। যেহেতু এই ইন্ডাস্ট্রিটা ওপেন এবং গ্লোবাল; সেহেতু আপনি যেই মুহূর্তে যেই নিসটা নিয়ে কাজ করছেন; দেখা যায় যেই মুহূর্তেই সেইম নিস নিয়ে বিশ্বের কেউ না কেউ কাজ করছে। সুতরাং আপনি যদি আপনার প্রজেক্টে সময় না দেন, অন্যরা কিন্তু বসে নেই এবং দেখবেন আপনার নিসে কম্পিটিশন বেড়েই যাচ্ছে দিন দিন।

আমি আমার স্টুডেন্টসের জন্যে একটা অ্যামাজন নিস সাইট লাইভ প্রজেক্ট চালু করেছি। যখন শুরু করেছিলাম তখন ম্যাক্সিমাম কিওয়ার্ডগুলোর কিওয়ার্ড ডিফিকাল্টী ছিল থেকে এর মধ্যে। এখন অনেকগুলোরই ডিফিকাল্টী এর উপরে উঠে গেছে।

অতএব, প্রতিদিনই শুধু কাজ করার জন্যে  একটা স্পেসিফিক টাইম এসাইন করে রাখুন আপনার ওই নির্দিষ্ট প্রজেক্টের জন্যে।

৩। অলস মানুষরাই সবচেয়ে বেশি ক্রিয়েটিভ। কারণ তারা বেশ জটিল কাজও শর্টকাটে করার উপায় খুঁজে এবং সময় সময় সফলও হয়। সুতরাং একটু আধটু অলস হওয়া খারাপ কিছু না। 😛

নোটঃ আমি অবশ্য আলসেমি কাটানোর উপায় খুজতেসি। 🙂

৪। পৃথিবীর সব কাজ ভালো লাগতে হবে এমন কোন কথা নেই। যেহেতু অনলাইনে আমরা কাজই করি টাকা উপার্জনের জন্যে; সেক্ষেত্রে অনেক সময় আমাদের ভালো না লাগলেও কাজ করতে হবে। নিজেকে বোঝাতে হবে যে, আমার হাতে আর কোন অপশন নেই।

৫। “Best Kitchen Fume Hoods” এইরকম বিদঘুটে জিনিস নিয়ে কাজ করতে কারই বা ভালো লাগে বলুন? কিন্তু মাসশেষে টাকাটাই আমাদের জন্যে মোটিভেশন। তখন পুরো মাসের এইরকম বিদঘুটে নিসে কাজ করার কষ্ট আর কষ্ট লাগে না। 🙂

আপনার যদি ইনভেস্টমেন্ট এর সমস্যা থাকে তাহলে আপনি প্রথমে স্কিল ডেভেলপমেন্ট করুন। ছোট ছোট কাজ থেকেও আপনি ইনকাম করতে পারবেন। যেমন : আপনি কীওয়ার্ড রিসার্চ করে ইনকাম করতে পারেন, ছোট খাটো লিংক বিল্ডিং সার্ভিস দিয়ে ইনকাম করতে পারেন আবার কনটেন্ট লিখেও ইনকাম করতে পারেন।
তাই ইনভেস্টমেন্ট এর জন্য চিন্তা না করে স্কিল ডেভেলাপ করুন টাকা আপনার পিছন পিছন আসবে।

অনেকে মার্কেট প্লেস এর নাম শুনে ঐখানে একটা একাউন্ট করে মনে করে করেন কাজ পেয়ে যাবেন ? এইটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। কারণ আপনার স্কিল টেস্ট দিতে হবে, প্রোফাইল ঠিকঠাক সাজাতে হবে, ডেডিকেটেড কাজ করতে হবে। ক্লায়েন্ট হ্যান্ডেল করার মতন স্কিল থাকতে হবে সাথে কমিউনিকেশন স্কিল থাকতে হবে।

সুতরাং কাজ করতে থাকুন। সময় দিন। ফোকাস থাকুন। সফলতা না আসলেও লেগে থাকুন। মনে রাখবেন, যারা একটা কাজ শুরু করে এবং সেটার শেষ দেখা না পর্যন্ত আঁকড়ে ধরে লেগে থাকে, দিন শেষে তারাই সফল।

About the author

নাসির উদ্দিন শামীম

নাসির উদ্দিন শামীম এসইও নিয়ে কাজ করছেন ২০১০ থেকে।ইতোমধ্যে, DevsTeam, LateNightBirds, NShamimPRO এবং আরো অনেক ইন্টারনেট বেসড কোম্পানি ফর্ম করেছেন। NShamim.Com ব্লগে ইন্টারনেট মার্কেটিং নিয়ে বাংলা ভিডিও টিউটোরিয়াল দিয়ে হাজারো বাংলা ভাষাভাষীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন। যারা ভিডিও দেখতে পারছেন না, অথবা পর্যাপ্ত ইন্টারনেট না পাওয়ার কারনে ইউটিউব থেকে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারছেন না, তাদের জন্যেই মূলত এখানে বাংলায় লিখছেন। সাথেই থাকুন।

View all posts

Leave a Reply