Last Updated on

এফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে হাজার হাজার অনলাইন প্রফেশনালদের অনলাইন ইনকামের মধ্যে প্রধান উৎস গুলোর মধ্যে অন্যতম। অনেক অনলাইন বিসনেস গুলা এখন এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মধ্যে যুক্ত হচ্ছে এবং সেই সাথে এটি প্যাসিভ ইনকামের জন্য এফিলিয়েট মার্কেটিং ব্লগারদের জন্য একটি বিশাল সুযোগ তৈরী করে দিয়েছে।

সাধারণত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটাররা বিভিন্ন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকে। এই সকল এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক গুলা এফিলিয়েট মার্কেটারদের তাদের এফিলিয়েট প্লাটফর্মে যুক্ত করে, তবে একজন এফিলিয়েট মার্কেটার এর টোটাল সেল রেভিনিউ থেকে অথবা প্রতিটা সেল থেকে ছোট ফি কেটে নিয়ে থাকে।

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটটিতে অর্গানিক ট্রাফিক নিয়ে আস্তে সক্ষম হন তবে আপনি ঐ ট্রাফিক দিয়ে যেকোনো এফিলিয়েট নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে পারবেন ও সেই প্লাটফর্ম থেকে প্যাসিভ ইনকাম এর বিশাল একটি ক্ষেত্র বের করে আনতে পারবেন

সম্প্রতি সময়ে আমাজন এফিলিয়েট প্লাটফর্মটিতে কমিশন কমানো নিয়ে আমাদের অনলাইন কমিউনিটিতে বেশ হৈ চৈ ও হতাশা দেখা গিয়েছে। কিন্তু আপনাদের একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে আপনার ওয়েবসাইট এ ট্রাফিক যতক্ষণ থাকবে তা দিয়ে আপনি যেকোনো এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এ যুক্ত হয়ে ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। তাই আমি আপনাদেরকে আজ আমাজনসহ আরো অন্যান্য এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক কি কি আছে তার একটি পর্যালোচনা তুলে ধরছি। সাথেই থাকুন 🙂

Contents hide

১) অ্যামাজন এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক

আমাদের সকলের প্রিয় একটি এফিলিয়েট প্লাটফর্ম ও বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ই-কমার্স সাইট। এখনো এই নেটওর্য়াকটি এফিলিয়েট মার্কেটারদের প্রবেশের প্রথম ধাপ হিসেবে দেখা হয়ে থাকে। আমাজন এর বিশাল প্রোডাক্ট ভান্ডারের কারণে এফিলিয়েট মার্কেটারদের তাদের পণ্যের এফিলিয়েট করতে সহজ করে দিয়েছে।

যেভাবে আমাজান এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এ যুক্ত হবেন

আপনি https://www.amazon.com/ এ যাবেন তারপর ওয়েবসাইট এর নিচে মানে ফুটার অংশে become an affiliate কথাটি দেখতে পাবেন সেই খানে ক্লিক করবেন। এখন স্টেপ বাই স্টেপ জেনে নেই;

স্টেপ-০১: Create amazon account এ ক্লিক করবেন। তখন আপনি একটিরেজিস্ট্রেশন ফর্ম পাবেন।

স্টেপ-০২: এই সময় আপনার নাম,ইমেইল,পাসওয়ার্ড দিয়ে Create Your Amazon Account ক্লিক করলেই পরবর্তী স্টেপে রিডাইরেক্ট করবে। 

স্টেপ-০৩: এই স্টেপে OPT কোড পাবেন যা কিনা আপনার মেইল এ যাবে সেই OPT কোড আপনি কপি করে পেস্ট করে দিয়ে নেক্সট বাটন এ ক্লিক করে “Creating Your Amazon Associates Account” স্টেপে চলে যান। 

স্টেপ-০৪: আপনার একাউন্ট এর বেসিক ইনফরমেশন দেন। কিন্তু একটা কথা মনে রাখবেন আপনার যদি পেওনিয়ার একাউন্ট থাকে তাহলে পেওনিয়ার একাউন্ট এ যে নাম আছে ঐ নাম দিবেন। ফোন নাম্বার এর ক্ষেত্রে আপনি বাংলাদেশী ফোন যেটা ব্যবহার করছেন ঐটা দিবেন। যদি বাংলাদেশী নাম্বার এ কাজ না করে সেই ক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন ভার্চুয়াল নাম্বার ব্যবহার করবেন। ইনফোরামশন ফর্ম ফিলাপ হলে নেক্সট বাটন ক্লিক করে পরবর্তী স্টেপে চলে যান। 

স্টেপ-০৫: পরবর্তী স্টেপে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর ইনফরমেশন দিবেন। একটি বিষয় মাথায় রাখবেন যেই ওয়েবসাইট আমাজন এ অ্যাড করবেন তা যেন মানসম্মত কনটেন্ট থাকে। কারণ আমাজন যখন আপনার ওয়েবসাইট ম্যানুয়ালি চেক করবে তখন একাউন্টটি বাতিল হয়ে যেতে পারে। সব কিছু ঠিক থাক ফিলাপ করার পরে নেক্সট বাটন এ ক্লিক করে পরবর্তী স্টেপে চলে যান। 

স্টেপ-০৬: এই সময় আপনার ফোন ভেরিফিকেশন এর জন্য আপনার নাম্বার চাওয়া হবে। আপনি মোবাইল নাম্বার দেয়ার পর call me now ক্লিক করবেন তারপর আপনার মোবাইলে একটি কল আসবে ও কোডটি পাবেন ওই কোডটি আপনি দিয়ে দিলেই ভেরিফিকেশন হয়ে গেলো। টার্মস ও কন্ডিশন এ ক্লিক করে ফিনিশ ক্লিক করুন 

স্টেপ -০৭: আপনি পেমেন্ট মেথড ভেরিফাই করুন সাথে ট্যাক্স ইনফো দিয়ে দিন যদিও আপনি এই ইনফরমেশন পরেও অ্যাড করতে পারবেন। যদি পরে অ্যাড করেন তাহলে skip করুন। তারপর আপনাকে আমাজন কোড দেয়া হবে আপনার ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্ট প্রমোট করার জন্য।

২) Awin

পূর্বে এর নাম ছিল এফিলিয়েট উইন্ডো কিন্তু এখন অফিসিয়ালি নাম হচ্ছে awin. এই এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এর দাবি অনুযায়ী তাদের নেটওয়ার্কে ১৩০০০ একটিভ এডভার্টাইজার আছে ১,০০,০০০ পাবলিশার (এফিলিয়েট মার্কেটার) আছে। পৃথিবীর ১১ টি দেশে Awin এর কাযক্রম দেখা যায় কিন্তু এই প্লাটফর্মটি ইউরোপে বেশ জনপ্রিয়। 

যেভাবে Awin একাউন্ট করবেন

রেজিস্ট্রেশনের জন্য এই ইউআরএল এ যাবেন https://ui.awin.com/ তারপর উপরের মেনু বারে পাবলিশার কথাটি দেখতে পাবেন ঐখান ক্লিক করার সাথে সাথে নিচের ড্যাশবোর্ড এ ঢুকে যাবেন। 

স্টেপ-০১: একাউন্ট ইনফরমেশন :
আপনার ইনফরমেশন গুলো ফিবেন।  প্রথমেই কোম্পানি নামের মধ্যে আপনার ওয়েবসাইট এর নাম দিয়ে শুরু করবেন তারপর আপনার দেশ সিলেক্ট করবেন এবং আপনার নাম ইমেইল পাসওয়ার্ড দিয়ে নেক্সট বাটন ক্লিক করে পরবর্তী স্টেপ এ  চলে যাবেন। 

স্টেপ-০২: প্রমোশনাল টাইপ :
এই স্টেপে আপনি আপনার ওয়েবসাইট না অন্য কোনো মাধ্যমে তাদের এফিলিয়েট লিংক প্রমোশন করবেন তার ডিটেলস দিবেন। 

স্টেপ-০৩: প্রমোশনাল স্পেস :
আপনি কি কি মাধ্যম ব্যবহার করবেন সেটি এইখানে উল্লেখ করে দিবেন। পেইড অ্যাড, সোশ্যাল মিডিয়া, এসইও এইরকম কিছু অপসন আসবে তাতে যেই মাধ্যমে প্রমোশন চালাবেন তা উল্লেখ করে দিবেন। 

স্টেপ-০৪: ভেরিফিকেশন :
এই ফর্মে আপনার কান্ট্রি, ফ্লাট, বিল্ডিং নম্বর, সিটি/টাউন,পোস্ট কোড টেলিফোন নাম্বার এই সব ডিটেল ফিলাপ করুন। তারপর আপনি ইনভিটেশন কোড বা অনলাইন পেমেন্ট ক্লিক করে ভেরিফিকেশন করুন। 

ইনভিটেশন কোড : একাউন্ট রিভিউ করে অপ্প্রভ করলে পানি আপনার পেমেন্ট মেথড অ্যাড করতে পারবেন।

অনলাইন পেমেন্ট : আপনি ছোট একটি রেজিস্ট্রেশন ফি জমা দিন ঐ ফি তা আপনার প্রথম অনলাইন পেমেন্ট এর সাথে ফেরত পেয়ে যাবেন।   

সুবিধা

  • প্রতি মাসে ২ বার পেমেন্ট দেয় হয়। ($20 minimum)
  • রিয়েল টাইম রিপোর্ট 
  • ড্যাশবোর্ড ব্যবহার করা খুবই সহজ। 

অসুবিধা  

  • সাইন আপ করতে $5 অ্যাডভান্স পেমেন্ট করতে হয়। 
  • আপনার একাউন্ট অপ্প্রভ না হলে আপনি $5 ফেরত পাবেন না। 

৩) ShareAsale

ShareASale অন্যতম বড় এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এবং এটি awin এর একটি অংশ। Shareasale  প্লাটফর্ম এ ৪০০০ মার্চেন্ট আছে যার মধ্যে হাজার খানেক মার্চেন্ট এক্সক্লুসিভ। পাবলিশারদের জন্য ShareASale বিশাল একটি ক্ষেত্র। যার মধ্যে আপনি পাচ্ছেন; 

  • আর্নিং পার ক্লিক 
  • রিভার্সাল রেট  
  • এভারেজ সেল এমাউন্ট 
  • এভারেজ কমিশন 

Shareasale এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এর সুবিধা

  • বিশাল পার্টনার নেটওয়ার্ক,  ৪০০০+ মার্চেন্ট অন্তর্ভুক্ত আছে যার মধ্যে ১০০০ এক্সক্লুসিভ। 
  • ShareASale মেট্রিক্স ব্যবহার করেই আপনি সব থেকে ভালো অফার বেছে নিতে পারবেন।
  • যদি আপনার একাউন্ট ব্যালান্স $50. উপরে থাকে তবে আপনি মাসের ২০ তারিখেই পেমেন্ট পেয়ে যাবেন।

যেভাবে ShareASale একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: ShareASale.com  এ যান এবং Affiliate Sign Up এ ক্লিক করুন। 
স্টেপ-০২: ইউসার নাম তৈরী করুন, পাসওয়ার্ড  এবং কান্ট্রি রেসিডেন্স সিলেক্ট করুন। 
স্টেপ-০৩: আপনার ওয়েবসাইট অন্তর্ভুক্ত করুন এবং প্রশ্নের উত্তর গুলো দিয়ে দিন। 
স্টেপ-০৪: আপনার প্রাইমারি ইমেইল এড্রেস অ্যাড করুন 
স্টেপ-০৫: আপনার পার্সোনাল ডিটেলস দেন সাথে ওয়েবসাইট কি সম্পর্কিত তার ডিটেলস দেন। 
স্টেপ-০৬: পেমেন্ট মেথডস সিলেক্ট করুন। 
স্টেপ-০৭: ইউসার টার্মস এগ্রিমেন্ট পরে টিক দিয়ে কমপ্লিট এপ্লিকেশন দিয়ে পরবর্তী স্টেপে চলে যান। 
স্টেপ-০৮: ইমেইল চেক করুন কনফার্মেশন লিংকের জন্য 
স্টেপ-০৯: কনফার্মেশন লিংকে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন শেষ করুন। 

৪) CJ Affiliate

CJ এফিলিয়েট প্লাটফর্মটিকে সব থেকে বড় অনলাইন এফিলিয়েট প্লাটফর্ম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। আপনি যদি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকেন তাহলে CJ এফিলিয়েট প্লাটফর্মটির নাম অবশ্যই শুনেছেন। 

CJ Affiliate প্লাটফর্মটির প্রচুর পরিমানে এডভার্টাইজার্ থাকার ফলশ্রুতিতে তাদের বিভিন্ন সেগমেন্ট এর অফার গুলা  একটির সাথে অন্যটির তুলনা করতে সুবিধা হয়ে থাকে। এফিলিয়েট ট্র্যাকিং কোড খুঁজে পাওয়া সহজ ও তা আপনার ওয়েব সাইট  এ বসানো তেমন জটিল কাজ না। আপনি যখন অপঃপ্রভাল পাবেন তার কিছুক্ষণের মধ্যে CJ অফার গুলা প্রমোট করতে পারবেন। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: প্রথমে  www.cj.com এই লিংকে যান। তারপর আপনি Publisher এ Sign Up এ  ক্লিক করুন এফিলিয়েট একাউন্ট এর জন্য। 
স্টেপ-০২: ক্লিক করার পর আপনি পরের উইন্ডোতে দেখতে পাবেন Sign Up যেখানে আপানাকে ইমেইল, নাম, পাসওয়ার্ড, ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়ে Sign Up করতে হবে। 
স্টেপ-০৩:Sign Up হয়ে গেলে আপনাকে আরো কিছু ইনফো দিতে হবে যা নিচে দিয়ে দিচ্ছি; 

  • Country
  • Phone Number
  • Password
  • Company Name
  • Address
  • Preferred Currency
  • Website Name/URL
  • Website Description
  • Website Category
  • Average Site Traffic

এই ডিটেলস দিয়ে দিলেই রিভিউ করার পর অপ্প্রভ হলে, আপনি CJ Affiliate লিংক প্রমোট করার জন্য পেয়ে যাবেন।

সুবিধা

  • কমিশন তুলনামূলকভাবে ভালো 
  • সব ধরণের পণ্য আছে এফিলিয়েট করার জন্য  

অসুবুধা

  • নতুনদের জন্য ড্যাশবোর্ডটা একটু জটিল
  • মের্সেন্ট ও এফিলিয়েট এর তুলনায় কাস্টমার সাপোর্ট খুবই কম।   

৫) Rakuten Affiliate Network

Rakuten Affiliate Network সাইনআপ করাটা খুবই সহজ। আপনার ওয়েবসাইট বা ইমেইল মার্কেটিং বা সোশ্যাল মিডিয়া প্রমোশনস এর মাধমেও Rakuten থেকে আর্নিং করতে পারবেন।  

যেভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন

স্টেপ-০১: কোম্পানি ইনফো :

  • কান্ট্রি সিলেক্ট করুন; ব্যবসায়িক সত্ত্বা সিলেক্ট করুন; ব্যবসার নাম দেন; ট্যাক্স ফর্ম সিলেক্ট করুন; US হলে w-৯ অন্য দেশ হলে আপনাকে আরো কিছু ফর্ম ফিলাপ করতে হবে; এড্রেস ফোন নাম্বার দিন। 

স্টেপ-০২:

কন্টাক্ট এবং একাউন্ট ইনফো :
আপনার নাম, মেইল, ইউসার ও পাসওয়ার্ড দিন। সিকিউরিটি প্রশ্ন এর উত্তর দিন। 

স্টেপ-০৩:

ওয়েবসাইট ইনফো:

  • ওয়েবসাইট নাম ও ইউআরএল দিন 
  • আপনার বিসনেস মডেল দিন
  • পেজ ভিউ প্রতি মাস 
  • একটি শর্ট ডেসক্রিপশন দিন 
  • প্রাইমারি ক্যাটাগরি সিলেক্ট করুন 
  • জেন্ডার ও বয়স নির্ধারণ করুন 

স্টেপ-০৪: 

  • Rakuten পেমেন্ট আপনি ৫০ ডলার এর নিচে পাবেন না। তবে আপনি চাইলে আরো বেশি রেঞ্জ দিতে পারেন। 
  • ল্যাঙ্গুয়েজে সিলেক্ট করুন 
  • টার্ম ও পলিসি টিক করে দিন সাথে আপনি ১৮ বছরের নিচে না ঐটাও টিক মার্ক করে দিন।
  • সব শেষ এ signup me দেন।    

সুবিধা

  • এড রোটেশন: এটি গৌণ ফীচার হলেও তাৎপর্যপূর্ণ যখন আপনার এড অপ্টিমাইজ এর ব্যাপার থাকে। 
  • ডিপ লিংক অপসন : আপনি ইচ্ছে করলেই আপনার পছন্দ মতন বিভিন্ন এফিলিয়েট অফার এর প্রমোশন লিংক নিয়ে আপনার ওয়েবসাইট এ লিংক বসাতে পারেন। 

অসুবুধা

  • CJ Affiliate বা ShareASale.তুলনায় Rakuten ছোট এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক। 
  • পার্টনারদের কাছ থেকে পেমেন্ট পাবার পর এফিলিয়েট মার্কেটারদরে পেমেন্ট করে থাকে। 

৬) AvanGate ( 2Checkout )

AvanGate এখন অফিসিয়ালি নাম হচ্ছে  2Checkout যা কিনা অনেক মার্চেন্ট এর মধ্যে দ্বিধা দ্বন্দ্ব তৈরী করেছে। 2Checkout আসলে Avangate এর সাবসিডিয়ারি হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে।      
2Checkout এফিলিয়েট প্রোগ্রাম বিশেষত ফোকাস করে সফটওয়্যার সেল ও ডিজিটাল পণ্য সেল এর ক্ষেত্রে। 2Checkout এ ২২০০০ ভিন্ন ভিন্ন সফটওয়্যার প্রোডাক্ট পাবেন যাদের মধ্যে অনেক বড় কোম্পানিও আছে যেমন কাস্পেরসি, বিট-ডিফেন্ডার ইত্যাদি।  

সুবিধা

  • এই প্লাটফর্মে আপনি সফটওয়্যার প্রোডাক্ট এবং সাস প্রোডাক্ট সেল করতে পারবেন 
  • ১২০ দিনের কুকিজ সময়কাল 
  • কমিশন রেট ২৫%-৮০% পর্যন্ত হয়ে থাকে। 
  • পেমেন্ট আপনি পেপাল, ডাইরেক্ট ডিপোজিট অথবা মাস্টার কার্ড এর মাধ্যমে নিতে পারবেন। 

অসুবিধা

  • মিনিমাম ১০০ ডলার হতে হবে পেমেন্ট উইথড্রল করতে 
  • ড্যাশবোর্ড লিমিটেড সার্চ 
  • বিশাল সংখ্যার কাস্টমার অসন্তুষ্ট 
  • কাস্টমার সার্ভিস ভালো না 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: 

এই লিংকে Sign up এর জন্য যাবেন; https://www.avangatenetwork.com/affiliates/sign-up.php

স্টেপ-০২:

বেসিক ইনফরমেশন :

  • First Name
  • Last Name
  • Email Address
  • Company name 
  • Address 1/ Address 2
  • City
  • Zip postal code 
  • Country 

স্টেপ-০৩:

Where did you hear about us?

  • এই অপশনটিতে আপনি তাদের কিভাবে পেলেন সেই অপশনটি সিলেক্ট করে দিবেন। 

স্টেপ-০৪:

বিসনেস ডিটেলস:

  • ওয়েবসাইট ইউআরএল দিবেন 
  • প্রমোশন মেথড : কনটেন্ট ও রিভিউ দিবেন 
  • বিসনেস ডোমেইন
  • মান্থলি সেলস ভলিউম কেমন হবে তা সিলেক্ট করে দিবেন 
  • টার্মস ও পলিসি অপশনটিতে টিক করে create my account বাটন এ ক্লিক করে একাউন্ট তৈরী করে নিবেন। 

৭) eBay Partner Network

আপনি খুব ভালো কমিশন অর্জন করতে পারবেন eBay এফিলিয়েট এর মাধ্যমে। অপার ওয়েবসাইট এ যদি ভালো পরিমান ট্রাফিক থাকে তাহলে এফিলিয়েট লিংক পাওয়া খুবই সহজ। eBay আপনাকে অফার করছে তাদের বিভিন্ন আইটেম এর জন্য  ফ্রি লিংক জেনারেট করতে দিয়ে, এড ক্রিয়েটিভ এবং উইডগেট এর মাধ্যমে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: 
eBay Partner Network এ যেয়ে Apply Now! তে ক্লিক করুন। একটি এপ্লিকেশন পেজ ওপেন হবে। 
স্টেপ-০২:
একটি চেক বাক্স আসবে যে নিশ উপর এফিটিক লিয়েট’ করতে চান তা টিক দেন। .
স্টেপ-০৩:
টার্ম কন্ডিশন পরে  ক্লিক করে পরের স্টেপ এ যান। 
স্টেপ-০৪:
“eBay User ID” তে ক্লিক করুন যদি আপনি আপনার এফিলিয়েট পোগ্রামে অ্যাড হতে চান। 
স্টেপ-০৫: 

Are you a member of the eBay Developer Program?” এই প্রশ্নের উত্তরে হা বা না দিন। 
স্টেপ-০৬:

টার্মস ও পলিসিতে আপনি যদি রাজি হন তবে “Continue” বাটন এ ক্লিক করুন। 
স্টেপ-০৭:

আপনার কন্টাক্ট ইনফো দিন আপনার নাম; ফোন নাম্বার; ইমেইল এড্রেস; পাসওয়ার্ড 
স্টেপ-০৮:

৩ টি সিকিউরিটি প্রশ্ন উত্তর সিলেক্ট করুন 
স্টেপ-০৯:

আপনার বিসনেস ইনফো দেন সাথে কোম্পানি নাম ও বিসনেস ডেসক্রিপশন 
স্টেপ-১০:

আপনার ওয়েবসাইট ইউআরএল দেন; সিলেক্ট বিসনেস মডেল এবং ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে “Continue.” তে ক্লিক করেন। 
স্টেপ-১১:

পেমেন্ট মেথড সিলেক্ট করুন। আপনি পেপাল অথবা ডাইরেক্ট ডিপোজিট নিতে পরনে। অপমার ব্যাংক এর নাম রাউটিং নাম্বার এবং একাউন্ট নাম্বার দিন। 
স্টেপ-১২: 

ক্লিক  “Submit Application.” Ebay” আপনার আবেদন গ্রহণ করলো না রিজেক্ট করলো তার জন্য  মেইল অথবা ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ এর মাধ্যমে জানিয়ে দিবে।

৮) ClickBank

ক্লিক ব্যাংক প্রথম দিকে ফোকাস করতো ডিজিটাল প্রোডাক্ট, মার্কেটিং টাইপ কোর্স কিন্তু বর্তমানে বিশাল ভাবে তাদের অফার বিসৃত করেছে ডিজিটাল ও ফিজিক্যাল পণ্যের মাধ্যমে।
ক্লিক ব্যাংকে আপনি এফিলিয়েট এর জন্য পাচ্ছেন নিস্ ই-বুক; অনলাইন কোর্স এবং ই-কোর্স যার মধ্যে তারা কিছু ফিজিক্যাল পণ্য রেখেছে। 
এভারেজ কমিশন রেট
 ৭৫% পর্যন্ত 
কুকিজ সময়কাল 
প্রোডাক্ট টু প্রোডাক্ট ভিন্নতা আছে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:
ক্লিক ব্যাংক এর ইউআরএল এ যান ClickBank.com
স্টেপ-০২: 
“Promote” এ ক্লিক করুন তারপর “Join” এ ক্লিক করুন।
স্টেপ-০৩:
আপনার ডিটেলস দেন। ডেটাইস এর মধ্যে ১) পার্সোনাল ইনফরমেশন ২) ব্যাংকিং ইনফরমেশন ৩) একাউন্ট ইনফরমেশন দিন। 
স্টেপ-০৪: 
একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন সাবমিট করুন। সাবমিট এ ক্লিক করুন রিলেভেন্ট ইনফরমেশন প্রতিটা সেক্শনে দেয়ার পর। 
যখন আপনি ক্লায়েন্ট সার্ভে পাবেন সার্ভে ফিলআপ করে সাবমিট করুন। 
স্টেপ -০৫:

ইমেইল কন্ফার্ম করুন
যখন আপনি রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করবেন ক্লিক ব্যাংক আপনার মেইল এ এক্টিভেশন লিংক দিবে। ওই লিংক এ ক্লিক করে মেইল ভেরিফাই করুন।

সুবিধা

  • সাপ্তাহিক পেমেন্ট দেয়া হয়। 
  • জয়েন্ট ভেঞ্চার প্রোগ্রাম পারমিট করা হয় 
  • বড় ও শক্তিশালী এফিলিয়েট প্রোগ্রাম 

অসুবিধা

  • শক্তিশালী কম্পিটিটর অন্যান্য এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক গুলা যারা একই প্রোডাক্ট সেল করছে। 
  • কিছু ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেল করা হয়েছে যার কোয়ালিটি নিম্মমানের। 
  • প্রথম পেমেন্ট চেকে করা হয়ে থাকে। 
  • ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট একদমই কম 

৯) LinkConnector

লিংক কানেক্টর যেসকল প্রোডাক্ট অফার করছে তার মধ্যে ডিজিটাল প্রোডাক্ট এবং ফিজিক্যাল পণ্য অন্যতম। ডিজিটাল প্রোডাক্ট গুলার মধ্যে তারা ই-বুক ও অনলাইন কোর্স বাদ দিয়ে সব রকম ই-কমার্স পণ্য অফার করছে। আপনি যেসকম মাধ্যম গুলাতে প্রমোট করতে পারবেন তার মধ্যে CPA , CPS, PPC এবং PPL 
এভারেজ কমিশন রেট
সেলারদের উপর নির্ভর করে। 

কুকি সময়
ভেন্ডরদের উপর কুকি সময় নির্ভর করে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১

ওয়েবসাইট ইনফরমেশন
ওয়েবসাইট এর নাম; ওয়েবসাইট ইউআরএল; কীওয়ার্ড; ওয়েবসাইট ডেসক্রিপশন; কোন ক্যাটাগরিতে কাজ করবেন; আপনি যেভাবে লিংক কানেক্টরকে পেলেন তা সিলেক্ট করুন। 

স্টেপ-০২

কোম্পানি ইনফরমেশন

  • কোম্পানি নাম 
  • ফোন নাম্বার 
  • শেষ ১২ মাসের ইনকাম

স্টেপ -০৩:মেইলিং এড্রেস

  • এড্রেস; সিটি; স্টেট; জিপ/পোস্টাল কোড; কান্ট্রি  এই গুলা ফিলাপ করুন। 
  • স্টেপ-০৪ ইউসার এবং পাসওয়ার্ড :
  • ইউসার নাম, পাসওয়ার্ড; সিকিউরিটি প্রশ্ন উত্তর দিয়ে ক্যাপচা দিয়ে সাবমিট বাটন এ ক্লিক করুন। 

সুবিধা

  • বড় বড় ব্র্যান্ড গুলার এক্সক্লুসিভ এক্সসেস 
  • ভালো কাস্টমার সার্ভিস 
  • প্রাইভেট কুপন কোড দেয়া হয়। 

অসুবিধা

  • ড্যাশবোর্ড ও ওয়েবসাইট ডিসাইন ভালো নয়। 
  • ৬০% আবেদনকারী রিজেক্ট করা হয়। 
  • লিংক যেখানেই ব্যবহৃত হয় তা মার্সেন্টরা কন্ট্রোল করতে পারে। 

১০) RevenueWire

অন্যান্য এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক এর মতন এটিও একটি বিশাল এফিলিয়েট প্লাটফর্ম। এই প্লাটফর্ম এও আপনি ডিজিটাল ও ফিজিক্যাল পণ্য পাবেন। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: Tell Us About Yourself

  • স্টেপটিতে আপনার নাম; ইমেইল; ফোন নাম্বার; স্কাইপ; এড্রেস; সিটি; কান্ট্রি; স্টেট/প্রভিন্স; কমিউনিকেশন মাধ্যম সিলেক্ট করে দিবেন। 

স্টেপ-০২: Tell Us About Your Business

  • কোম্পানি নাম : কোম্পানি নামের মধ্যে আপনার নাম দিবেন। 
  • কোম্পানি  ওয়েবসাইট : আপনার ওয়েবসাইট ইউআরএল দিবেন। 
  • এক্সপেরিন্স দিবেন
  • আগে কোনো এফিলিয়েট নেটওয়ার্কে কাজ করে থাকলে উল্লেখ করে দিবেন। 
  • কোন নিস্ নিয়ে কাজ করছেন সেই নিস্ এর নাম উল্লেখ করে দিবেন। 
  • আপনি কিভাবে ট্রাফিক আনছেন সেইটা সিলেক্ট করবেন। 

স্টেপ-০৩: Create Your Account:

  • এফিলিয়েট আইডি দেন
  • আপনার পাসওয়ার্ড দিন 
  • এপ্লিকেশন ধরণ নির্ধারণ করুন 
  • এপ্লিকেশন এর উদ্দেশ্য নির্ধারণ করুন 
  • আপনি কিভাবে RevenueWire এর কথা শুনলেন তা সিলেক্ট করুন। 
  • টার্মস ও কন্ডিশন টিক করে ক্যাপচা কোড দিয়ে “Create New Account” ক্লিক করে দেন। 

১১) FlexOffers  

ফ্লেক্সঅফার এফিলিয়েট মার্কেটিং নেটওয়ার্ক গুলোর মধ্যে অন্যতম বড় নেটওয়ার্ক। তারা অন্যান্য এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক থেকেও বেশি তাড়াতাড়ি পেমেন্ট করে দেয়।       
FlexOffers কানেক্ট ব্লগারস, কনটেন্ট ক্রিয়েটর এবং বিভিন্ন ধরেনর পাবলিশরা যেমন ছোট মিডিয়াম এবং বড় বাজেট এডস এবং ব্র্যান্ডস। 
তাদের হাজার হাজার এফিলিয়েট প্রোগ্রাম আছে যা এফিলিয়েট মার্কেটাররা পছন্দ করে নিতে পারে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:  

আপনি https://publisherpro.flexoffers.com/Registration এই ইউআরএল এর মাধ্যেম এফিলিয়েট মার্কেটার হিসেবে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। 
স্টেপ:০২: 
একাউন্ট ইনফো :
আপনার নাম; ইমেইল; কন্ফার্ম মেইল আইডি সিলেক্ট করেন।
স্টেপ-০৩:
Terms and Conditions এ টিক করে “Registar” ক্লিক করে পরবর্তী স্টেপে চলে যান। 
স্টেপ-০৪:
কোম্পানি ইনফো :
কোম্পানি নাম : কোম্পানি নামের মধ্যে আপনার নাম দিবেন।
কোম্পানি ওয়েবসাইট : আপনার ওয়েবসাইট ইউআরএল দিবেন।
ওয়েবসাইট কি নিয়ে তা সিলেক্ট করে দিবেন 
আগে কোনো এফিলিয়েট নেটওয়ার্কে কাজ করে থাকলে উল্লেখ করে দিবেন
স্টেপ-০৫:
ট্রাফিক সোর্স :

আপনি কোন মাধ্যম থেকে ট্রাফিক আনছেন সেইটা উল্লেখ করে দিবেন 
স্টেপ-০৬:
আপনার মেইল এ মেইল যাবে কন্ফার্ম লিংকসহ সেই লিংকে ক্লিক করবেন কন্ফার্ম করে রেজিস্ট্রেশন পর্ব শেষ করবেন। 

সুবিধা

  • আপনি কাউকে রেফার করলে তার ইনকাম থেকে কিছু অংশ কমিশন হিসেবে পাবেন

অসুবিধা

  • পেপাল একমাত্র পেমেন্ট ব্যবস্থা 

১২) AvantLink

AvantLink এফিলিয়েট মার্কেটারদের মধ্যে জনপ্রিয় একটি এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক। ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট ছাড়াও বিভিন্ন ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেল করে থাকে তারা। আপনি আপনার এফিলিয়েট প্রোডাক্ট যদি AvantLink এর কোনো ভেন্ডর খুঁজে পান তবে আপনি আপনার প্রোডাক্ট এফিলিয়েট এর জন্য আপনি  AvantLink এ একাউন্ট করে ফেলতে পারেন। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১: 
এই লিংকে যেয়ে sign up করে ফেলেন; https://www.avantlink.com/signup/affiliate/us 
স্টেপ-০২:
আপনার নামের প্রথম অংশ, শেষ অংশ, ওয়েবসাইট এর নাম; ওয়েবসাইট ইউআরএল; ওয়েবসাইট ডেসক্রিপশন এর মধ্যে কোনো নেটওয়ার্ক এ অ্যাড থাকলে উল্লেখ করে দিবেন সাথে মান্থলি ইনকামও উল্লেখ করে দিতে পারেন; ফোন নম্বর; ইমেইল আইডি ;City ; Zip postal code ; Country দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ফেলবেন। 

১৩) Tradedoubler

Tradedoubler ১৯৯৯ সালে সুইডিশ ২ জন তরুণ ব্যবসায়ীর হাতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তারা ইউরোপ জুড়েই তাদের এই এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে বিস্তৃত করেছে। বর্তমানে তাদের ২০০০ মার্চেন্ট ও ১৮০০০০ একটিভ এফিলিয়েট মার্কেটটার নেটওয়ার্কে একটিভ আছে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:
রেজিস্ট্রেশন এর জন্য আপনি এই লিংকে যান; https://publisher.tradedoubler.com/public/aSignup.action
স্টেপ-০২:
কান্ট্রি; ল্যাংগুয়েজ; টাইপ সিলেক্ট করুন। 
স্টেপ-০৩:
আপনার নাম; ইমেইল; পাসওয়ার্ড; ওয়েবসাইট; কন্ট্রোল কোড দিয়ে প্রাইভেসি পলিসিতে টিক মার্ক দিয়ে “Create account” দিলেই আপনার রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করুন। 

১৪) Webgains

এই নেটওয়ার্ক UK বেসড হলেও US হচ্ছে একটিভ অফিস। ওয়ার্ল্ড ক্লাস কাস্টমার সার্ভিস এবং উন্নত টেকনোলজির জন্য Webgains সব থেকে ভালো প্লাটফর্ম। চলুন জেনে নেই কিভাবে একাউন্ট করবেন?

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:
একাউন্ট খোলার জন্য এই লিংকে যাবেন; https://platform.webgains.com/publisher/signup
স্টেপ-০২: 
আপনি ১৩ টি দেশের নেটওয়ার্কের মধ্যে ১ টি সিলেক্ট করবেন এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক হিসেবে। 
স্টেপ-০৩:
আপনার নামের প্রথম অংশ, শেষ অংশ; ইমেইল; পাসওয়ার্ড দেয়ার পর ট্রামস ও পলিসি টিক দিয়ে “SIGN UP” বাটন এ ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করে নিন। 

১৫) JVZoo

২০১১ সালে JVZoo প্রতিষ্টিত হলেও এই এফিলিয়েট প্লাটফর্মটি বেশ পপুলার। JVZoo এক্সক্লুসিভলি কাজ করে ডিজিটাল প্রোডাক্ট; ই-কমার্স; অনলাইন কোর্স এবং ইন্টারনেট মার্কেটিং অফার নিয়ে। 
কমিশন রেট প্রোডাক্ট ও মার্চেন্ট এর উপর নির্ভর করে। বেশ কিছু ৫০% উপরে কমিশন বা তার থেকে বেশি দিয়ে থাকে। কুকি সময়কাল আনলিমিটেড/লাইফ টাইম হয়ে থাকে। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:
এই লিংকে যেয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন  https://www.jvzoo.com/register/707499
স্টেপ-০২: 
আপনার  নাম; ইমেইল; পাসওয়ার্ড দিন  তারপর আপনার দেশ সিলেক্ট করে প্রাইভেসী পলিসিতে টিক দিয়ে রেজিস্ট্রেশন বাটন এ ক্লিক করুন। 
স্টেপ-০৩:
Verify account:
আপনার মেইল এ ভেরিফিকেশন লিংক যাবে তা ক্লিক করে একাউন্ট ভেরিফাই করে নিন। 
স্টেপ-০৪:
Select a Way to Get Paid:
পেমেন্ট মেথড সিলেক্ট করে নিন। ডাইরেক্ট ব্যাংক বা পেপাল বা পেওনিয়ার দিয়ে পেমেন্ট ভেরিফাই করে নিন। 
স্টেপ-০৫
Recommended Tools:
আপনাকে যেই টুলস গুলা রেকমেন্ড করা হবে ঐগুলা দিয়ে কাজ করতে হবে। 

সুবিধা

  • আপনি ফ্রীতে জয়েন করতে পারবেন 
  • আপনার নিজেস্ব ওয়েবসাইট এর প্রয়োজন পরে না। 
  • প্রচুর প্রোডাক্ট আছে এফিলিয়েট করার জন্য এবং কুকি লাইফটাইম। 

অসুবিধা

  • অনেক ভিডিও ও ডকুমেন্ট আছে কিন্তু আপনাকে এক্সেস পেতে পেমেন্ট করতে হবে। 
  • অনেক প্রোডাক্টের কোয়ালিটি লো। 
  • ৫০ টি প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারলে সাথে সাথে Paypal থেকে পেমেন্ট তুলতে পারবেন। 
  • ইউসার ড্যাশবোর্ড অগোছালো 

১৬) Target Affiliates

আমাজন এর মতন Target’s affiliate প্রোগ্রাম ডিসাইন করা। এই প্লাটফর্মের ফলে  ব্লগার এবং পাবলিশারদের জন্য আর্ন করা সহজ হয়েছে। আমেরিকানদের ট্রাস্টেড ও পরিচিত বলে এই প্লাটফর্মটি বেশ জনপ্রিয় এফিলিয়েট মার্কেটারদের কাছে। 
এই প্লাটফর্মে এক্সক্লুসিভলি ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করা হয়ে থাকে। প্রোডাক্ট সব কিছুই পাওয়া যায় টার্গেট সেল এ। কমিশন কিছুটা কম সর্বোচ্চ ৮% দিয়ে থাকে। কুকি সময়কাল ৭ দিন পর এক্সপাইয়ার হয়ে যায়। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:

এই লিংকে যেয়ে জয়েন করুন https://affiliates.target.com/campaign-mediapartner-signup/Target.brand?execution=e1s1
স্টেপ-০২:
Account Information

এই স্টেপে যেয়ে আপনাকে ল্যাংগুয়েজ সিলেক্ট করতে হবে; নাম; ওয়েবসাইট ইউআরএল; কান্ট্রি সিলেক্ট করে দিতে হবে; ব্যাংক লোকেশন কান্ট্রি দিতে হবে; কার্রেন্সি দিতে হবে; সিটি; স্ট্রিট; পোস্টাল কোড ; ফোন নাম্বার দিয়ে কন্টিনিউ ক্লিক করে পরবর্তী স্টেপে চলে যাবেন। 

১৭) SellHealth

এই এফিলিয়েট প্রোগ্রামটি জয়েন করতে কোনো প্রকার সাবস্ক্রিপশন লাগে না একদম ফ্রি। এই প্লাটফর্মটি শুধু মাত্র হেলথ নিস্ এর জন্য।  আপনি এপলাই করে অপপ্রভেদ পাওয়া মাত্রই এফিলিয়েট করতে পারবেন। SellHealth এর কমিশন রেটও অনেক ভালো ৩০% থেকে শুরু। তাই আপনি একটি প্রোডাক্ট সেল করে ৩৫০ USD পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। 

যেভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে

স্টেপ-০১:
ইউসার নাম সিলেক্ট করুন 
পার্সোনাল ইনফরমেশন :
আপনার নামের প্রথম অংশ, শেষ অংশ; ইমেইল; পাসওয়ার্ড; স্টেট; কান্ট্রি; ফোন নম্বর দিন। 
স্টেপ-০২: 
Payment Information:
পেমেন্ট মেথডস অ্যাড করুন। পেপাল বা ওয়্যার ট্রান্সফার 
স্টেপ-০৩
Other Information:
আপনার এক্সপার্টিজ লেভেল অ্যাড করুন। অন্য অপসনটিতে কিভাবে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এ ট্রাফিক আনেন তা সিলেক্ট করে দিন। 
স্টেপ-০৪:
Terms and Conditions
এই স্টেপটিতে Terms and Conditions এর ২ টি ঘরেই টিক দিয়ে”SIGN UP NOW” বাটন এ ক্লিক করুন। 

১৮) Bluehost:

পপুলার ওয়েব হোস্টিং গুলার মধ্যে একটি হচ্ছে blue host . Bluehost হোস্টিং গুলোর মধ্যে ফাস্ট ও সিকিউরও বটে।  আপনি blue host এর এফিলিয়েট করতে পারবেন সহজেই রেফারেলের মাধ্যমে। প্রতি রেফারেল ৬৫ USD থেকে ১২০ USD  পর্যন্ত হয়ে থাকে। আপনি যত নতুন কাস্টমার নিয়ে আসবেন ততই রেফারেল এমাউন্ট বাড়তে থাকে। 

যেভাবে এফিলিয়েট একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:

এই লিংকে যেয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ফেলুন; https://www.bluehost.com/cgi/partner/signup
স্টেপ-০২:
affiliate login information তে যেয়ে নাম ও পাসওর্য়াড দিন। 
স্টেপ-০৩:
account information এ যেয়ে আপনার নামের প্রথম অংশ, শেষ অংশ, ওয়েবসাইট এর নাম; ওয়েবসাইট ইউআরএল;  ফোন নম্বর; ইমেইল আইডি ;City ; Zip postal code ; Country দিন। 
স্টেপ-০৪:
Payment Information:
আপনার পেপাল ইমেইল আইডি দিন এবং টার্মস ও কন্ডিশনে ক্লিক করে Sign Up করে রেজিস্ট্রেশন শেষ করুন। 

১৯) Skimlinks

Skimlinks এফিলিয়েট প্লাটফর্মটা VigLinks এর মতন এফিলিয়েট প্লাটফর্ম। ২৪০০০ মার্চেন্ট Skimlinks এর সাথে কাজ করে যাচ্ছে। এটি সব ধরণের প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করলেও ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট এর আধিক্য কম। 
Skimlinks ডিজিটাল ও ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করলেও ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট এর আধিক্যটা কম। 
কমিশন রেট মার্চেন্ট থেকে মার্চেন্ট বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। যেমনঃ এই নেটওয়ার্ক তাদের ৪০০ + VIP পার্টনার বা মেম্বারদের ১০০ পার্সেন্ট পর্যন্ত কমিশন দিয়ে থাকে। 
কুকি সময়কাল মার্চেন্ট থেকে মার্চেন্ট বিভিন্ন হয়ে থাকে।  

যেভাবে একাউন্ট করবেন:

স্টেপ-০১:
এই লিংকে যাবেন; https://signup.skimlinks.com/
স্টেপ-০২: 
নাম; মেইল; পাসওয়ার্ড দিয়ে টার্মস ও কন্ডিশনে টিক দিয়ে”Sign Up” বাটন এ  ক্লিক করবেন। 

২০) MoreNiche

অনলাইন এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক গুলার মধ্যে সম্ভবত সব চাইতে স্বচ্ছ। এই প্লাটফর্মটা কাস্টমার প্রটেকশনটাই সবাধিক গুরুত্বের সাথে দেখে। আপনি যদি সৎ; বিশস্ততা; স্বচ্ছতার সাথে কাজ করার জন্য অঙ্গিকারবদ্ধ থাকেন তাহলে আপনি এই এফিলিয়েট প্লাটফর্মটিতে একাউন্ট করতে পারেন। 

যেভাবে একাউন্ট করবেন

স্টেপ-০১:
এই লিংকে রেজিস্ট্রেশনের জন্য যান; https://moreniche.com/join/
স্টেপ-০২:
একাউন্ট ডিটেইল
আপনার নাম; ইমেইল; পাসওয়ার্ড দিন। 
স্টেপ-০৩:
কন্টাক্ট ডিটেল দিন
আপনার এড্রেস; ফোন নম্বর ও অন্যান্য ডিটেলস দিন 
singup করে আপনি এফিলিয়েট লিংক নিয়ে আপনার প্রোডাক্ট প্রমোট করুন। 

কোন কিছু কি মিস করেছি ইনক্লুড করতে? কমেন্টে জানাবেন প্লিজ।