এঙ্কর টেক্সট নিয়ে অনেক প্রশ্ন পাই (প্রায় প্রতিদিনই)। এইটা নিয়ে আমার ভিডিও থাকা সত্ত্বেও সিম্পল একটা চেকলিস্ট তৈরি করেছি। আশা করি কাজে লাগবে। 

ধরুন, 

আপনার কিওয়ার্ডঃ Best Baby Strollers For Twins

আপনার রাউন্ড-আপ পোষ্টের লিঙ্কঃ  BabyCarezBase.com/best-baby-strollers-for-twins/ 

এখন এই কিওয়ার্ড এবং পোষ্টের জন্যে আপনি যদি ১২ টা ব্যাকলিঙ্ক করেন, তাহলে ঐ ১২ টা লিঙ্কের এঙ্কর টেক্সট কি হওয়া উচিত? 

নিন্মরূপঃ 

  1. twin strollers
  2. tandem stroller
  3. strollers for infants
  4. strollers from BabyCarezBase
  5. stroller options
  6. source/reference
  7. as seen on BabyCarezBase
  8. a detailed guide on baby strollers
  9. link
  10. learn more
  11. pick a baby stroller 
  12. studies show

টুলস ইউজডঃ 

১। https://lsigraph.com/analysis/

২। https://www.linkio.com/anchor-text-generator/

৩। আমার কিছু পারসোনাল এঙ্কর যেগুলো আমি ব্যবহার করি মোস্ট-অব-দ্যা টাইম। 🙂 

এখানে দেখেন আমি এক্স্যাক্ট ম্যাচ এঙ্কর “Best Baby Strollers For Twins” একবারও ব্যবহার করি নাই (ভালো সাইট থেকে এইটা নেয়া রিস্কি)। র‍্যাঙ্ক করার জন্যে ৮০% সময়ই এক্স্যাক্ট ম্যাচ এঙ্কর ব্যবহার করার প্রয়োজন হয় না (আমি এটা টেস্ট করে দেখেছি)। রিলেটেড এঙ্কর থাকলেই গুগল সেটাকে র‍্যাঙ্ক করে। শুধু শুধু রিস্ক নিয়ে লাভ কি? 

মনে রাখবেন, লিঙ্ক দিয়ে আপনি আপনার পোষ্টের সাথে বিভিন্ন সাইটের রিলেটড কন্টেন্ট/টপিকের সাথে রিলিভেন্সি এবং ট্রাস্ট বাড়াবেন বা ক্রিয়েট করবেন। জাস্ট এইটুকুই। আপনার মানি পেজ আপনি যে Best Baby Strollers For Twins এই কিওয়ার্ড দিয়ে র‍্যাঙ্ক করতে চাচ্ছেন সেটা আপনি গুগলকে বোঝাবেন আপনার অন-পেজ এক্সপার্টাইজ দিয়ে (বিভিন্ন ট্যাগ, মেটা এবং কন্টেন্ট অপ্টিমাইজ করে)। ব্যাকলিঙ্ক শুধু রিলেভেন্সি এবং পাওয়ার/ট্রাস্ট বিল্ডিং এর জন্যে, এটা কখনোই কোন একটা নির্দিষ্ট কিওয়ার্ড পিক করার জন্যে নয়। ঠিক এই জিনিশটাই যখন আপনি বুঝতে পারবেন বা উপলব্ধি করবেন তখন আপনি অনেক এগ্রেসিভ লিঙ্ক করলেও পেনাল্টি খাবেন না। 

তারপর কি? 

আপনি আপনার সাইটের প্রত্যেকটা কন্টেন্ট এর জন্যে উপড়ের এই এঙ্কর লিস্ট ফরম্যাটটা ফলো করুন। পোষ্টটা সেভ অথবা বুকমার্ক করে রাখুন। 

আশা করি এঙ্কর টেক্সট এর মূল ম্যাসেজটা ধরতে পেরেছেন। 

ধন্যবাদ। 

নোটঃ এখন আর শেয়ার করার জন্যে বলি না কাউকে। কারণ ভালো জিনিশ মানুষ শেয়ার করতে এমনিতেই ভালোবাসে। 🙂