how-to-get-mastercard

ফ্রীল্যানসিং এর জন্য মাস্টার কার্ড করার নিয়ম

Last Updated on

আমরা যারা ফ্রীল্যানসিং করি তাদের একটা বড় সমস্যা হচ্ছে ট্রানসাকশান গেটওয়ে। মানে অর্জিত অর্থ কি কিভাবে দেশে আনা যায় তার একটা মাথা ব্যথা থাকে। মাস্টারকার্ড হচ্ছে এই সমস্যার এক মাত্র সমাধান। তবে সব মাস্টারকার্ড কিন্তু আবার ফ্রীলান্সার কাজে আসে না। নিচে কোন কার্ড গুলো আমাদের জন্য প্রযোজ্য ও কাজে লাগে তার আলোচনা করবো।

পেওনিয়ার (Payoneer) কি?

পেওনিয়ার হচ্ছে এমন একটি মাস্টারকার্ড যার মাধ্যমে দেশের বাহিরের মার্কেট প্লেস ও মার্কেট প্লেস এর বাহিরের টাকা সহজেই আপনি দেশ এ আনতে পারেন। যেকোনো বুথ থেকে টাকা উত্তোলন করা যায় বা আপনি চাইলে ব্যাংক একাউন্ট থেকে টাকা উঠাতে পারেন। যেকোনো মার্কেটপ্লেসে আপনি কার্ড অ্যাড করতে পারবেন।

কিভাবে পেওনিয়ার এ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন?


তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক কিভাবে আপনি দেশে বসেই পেওনিয়ার কার্ড করে ফেলতে পারেন। 
যেসকল ডকুমেন্ট লাগবে :
১. আপনার ভোটার আইডি বা ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট (যে কোনো একটি)।
২. একটি ইমেইল আইডি ।
৩. বাংলাদেশের যে কোনো একটি ব্যাংকে আপনার একটি এ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।
৪. আপনার নিজেস্ব মোবাইল নাম্বার।

স্টেপ-০১:  পেওনিয়ার একাউন্ট করার জন্য এই খানে ক্লিক করুন। 
স্টেপ-০২: এই রকম একটা ইমেজ শো করবে। আপনি ২ টা অপশন পাবেন

ইন্ডিভিজুয়াল ও বিসনেস আপনি যেহেতু ইন্ডিভিজুয়াল তাই ইন্ডিভিজুয়াল একাউন্ট করবেন। 
স্টেপ-০৩: আপনি আপনার দেশ, এড্রেস ঠিক মতন পূরণ করবেন যাতে আপনার কার্ডটি সঠিক ঠিকানাতে পোঁছায়।

স্টেপ-০৪: আপনি এইবার ইউসার নাম পাসওয়ার্ড সিকিউরিটি প্রশ্নের উত্তর ও আপনার দেশ ন্যাশনাল আইডি বা ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট এর তথ্য দিবেন।

স্টেপ-০৫: আপনি এইবার আপনার ব্যাংক একাউন্ট এর সাথে কানেক্ট করবেন তাই ব্যাংক ডিটেলস দিবেন।

সব তথ্য দিয়ার পর আপনার একাউন্ট হয়ে গেলো কিন্তু কার্ড পেতে আপনাকে যেকোনো মার্কেট প্লেস থেকে ১০০ ডলার অর্জন করে পায়োনিয়ার এ অ্যাড করলে কার্ড অর্ডার করতে পারবেন।

স্বাধীন মাস্টারকার্ড কি ?

স্বাধীন মাস্টারকার্ড হচ্ছে একমাত্র ডুয়েল কারেন্সী কার্ড যার মাধ্যমে ফ্রীলান্সাররা সহজেই দেশে টাকা আন্তে পারবে। ব্যাংক এশিয়া এই কার্ড নিয়ে এলো ফ্রীলান্সারদের সুবিধার্থে।  অনলাইনে আয়কৃত অর্থ সহজেই দেশে আনতে এই কার্ডটি ব্যবহার করা যায়। ব্যাংক এশিয়া কে সাহায্য করছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়ার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এবং মাস্টারকার্ড।

কিভাবে স্বাধীন (Shadhin Card) মাষ্টারকার্ড করবেন?

যেসকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয়ে থাকে তা নিচে দেয়া হলো;  
– যেকোনো মার্কেটপ্লেসের প্রোফাইল
– ন্যাশনাল আইডি 
– পাসপোর্ট ফটোকপি  
-এক কপি ছবি

একুয়া মাস্টারকার্ড কি ?

একুয়া মাস্টারকার্ড  হচ্ছে ডুয়েল কারেন্সী মাস্টারকার্ড। এটি ইস্টার্ন ব্যাংক এর একটি সার্ভিস। এটিতে ডলার বা টাকা সহজেই লোড করা যাবে। পরবর্তীতে ঐ ডলার বা টাকা যে কোন কেনা কাটার কাজে ব্যবহার করা যাবে। অনলাইনে যেকোনো কেনা কাটা আপনি সহজেই এই কার্ডের মাধ্যমে করতে পারবেন। আপনি যেকোনো দেশে যেয়ে ঐ দেশের কার্রেন্সিতে টাকা উঠতে পারবেন। 

কার্ড পাওয়ার উপায় ?

একুয়া কার্ড নিতে চাইলে ইস্টার্ন ব্যাঙ্কের যে কোন শাখায় থেকে নিতে পারবেন।  যেসকল ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন হয়ে থাকে;
-ন্যাশনাল আইডি অথবা পাসপোর্ট,
-এক কপি ছবি
-কার্ড এর ফী হচ্ছে ৫০০ টাকা।

About the author

Yaqub Nipu

আমি মোঃ ইয়াকুব একজন এসইও শিক্ষানবিশ এবং NShamimPRO কোর্স এর একজন মেম্বার। নাসির উদ্দিন শামীম ভাই এর অনুপ্রেণায় এসইও কাজ শুরু করি এবং নিজের ব্লগ দাড় করাই। ব্লগ দাড় করতে গিয়ে যে সকল সম্যসার সম্মুখীন হয়েছি এবং যে সব কিছু মাথায় থাকতে হবে তাই নিয়েই আমার লিখা লিখি। আমিও এখনো একজন লার্নার, তাই  বলবো জানতে থাকুন ও নতুন নতুন জিনিস শিখতে থাকুন।

View all posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *